Alexa
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

জীবন অগাধ

শার্টটি আর নেই

আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১১:২০

আবদুস সালাম ১৯২৫ সালে জন্মেছিলেন আবদুস সালাম। ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার লক্ষ্মণপুর গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। মুন্সি আবদুল ফাজেল মিয়া তাঁর বাবা। মা দৌলতন্নেসা। বাবা ফাজেল মিয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যোগ দিয়েছিলেন এবং ইরাকের বসরায় কর্মরত ছিলেন। চার ভাই, তিন বোনের মধ্যে সালাম ছিলেন সবার বড়।

কৃষ্ণপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পর তিনি মাতুভূঞা কলিমুল্লাহ মাইনর স্কুলে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। এরপর দাগনভূঞা আতাতুর্ক হাইস্কুলে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর অর্থাভাবে আর পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেননি। কাজের খোঁজে এ সময় তিনি কলকাতার মেটিয়াবুরুজে তাঁর চাচাতো বোনের বাড়িতে যান। চাচাতো বোনের স্বামী আবদুল কাদের তাঁকে কলকাতা বন্দরে চাকরি জুটিয়ে দেন। ভারতভাগের পর সালাম ঢাকায় চলে আসেন। আজিমপুরের পলাশী ব্যারাকে থাকতে শুরু করেন। চাচাতো ভাই আবদুল হালিমের সহায়তার তিনি দিলকুশার ‘ডাইরেক্টরেট অব ইন্ডাস্ট্রিজ’-এ পিয়ন পদে চাকরি নেন। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত সেখানেই তিনি কাজ করেছেন।

ভাষাশহীদ আবদুস সালাম গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন একুশে ফেব্রুয়ারি বেলা সাড়ে ৩টায় মেডিকেল কলেজের সামনে। তিনি মারা গিয়েছিলেন সে বছরই ৭ এপ্রিল বেলা ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

৭ এপ্রিল সালামের মৃত্যুর পর পরিবারের সদস্যদের কাছে তাঁর মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়নি। সালামের জানাজায় উপস্থিত ছিলেন তাঁর পিতা মুন্সি আবদুল ফাজেল মিয়া এবং চাচাতো ভাই মকবুল। আবদুস সালামের কবর আজিমপুর গোরস্থানে ঠিক কোথায় আছে, সেটি এখনো স্পষ্ট জানা যায়নি।

ভাষাশহীদ আবদুস সালামের রক্তমাখা শার্টটি সংরক্ষণ করেছিল তাঁর পরিবার। কিন্তু একদিন সেটা চুরি হয়ে গিয়েছিল। তার একটি ছবি সংরক্ষিত ছিল; কিন্তু সেটি ভাষাসংগ্রামী খাজা আহমদকে পরিবারের পক্ষ থেকে হস্তান্তর করা হয়েছিল। তাঁর মৃত্যুর পর ছবিটি আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ১৯৫২ সালে তিনি থাকতেন নীলক্ষেত ব্যারাকে। তাঁর বয়স ছিল ২৭ বছর।

সূত্র: এম আর মাহবুব, একুশের অমর ভাষাশহীদ, গৌরব প্রকাশন, ২০১৭, পৃষ্ঠা ৪৪-৪৬

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    অর্থায়ন কমায় রোহিঙ্গাদের দক্ষতা উন্নয়নে জোর

    ইসলামে জুতা পরার আদব

    রেলের ইয়ার্ডকে পতিত জমি দেখিয়ে ইজারা

    বাল্যবিবাহ ঠেকানো শ্রাবন্তীর সাফল্য এখন উদাহরণ

    অ্যাসিড থামাতে পারেনি অদম্য সোনালিকে

    খননের মাটি ফেলা বন্ধে মরিয়া চাষিরা

    স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার হাতে বড় ভাই খুন 

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    পোল্যান্ডকে নিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনা

    অর্থায়ন কমায় রোহিঙ্গাদের দক্ষতা উন্নয়নে জোর

    এনডিটিভির মালিকানা চলে গেল আদানির হাতেই

    সম্মেলনের আগেই উৎসবে আ. লীগ নেতা-কর্মীরা

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    ফ্রান্সকে হারিয়েও শেষ ষোলোয় যাওয়া হলো না তিউনিসিয়ার