Alexa
শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

বয়স সংশোধনে ইউপির হিসাব সহকারীর ৫ হাজার টাকা দাবির অভিযোগ 

আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৪:৪০

 গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার বর্ণি ইউনিয়ন পরিষদে জন্মনিবন্ধন সনদ ও বয়স সংশোধনে সেবাগ্রহীতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় ও হয়রানির অভিযোগ উঠেছে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর শিমুল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। হিসাব সহকারীর এ বাণিজ্য নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 

জানা গেছে, সরকারি নীতি অনুযায়ী দেশে জন্ম বা মৃত্যুর ৪৫ দিন পর্যন্ত কোন ব্যক্তির জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন বিনা ফিসে করা হবে। শিশুর পাঁচ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা ও ৫ বছরের ওপরে সব বয়সীদের ৫০ টাকা নেওয়ার নিয়ম করে দিয়েছে সরকার। এ ছাড়া জন্মতারিখ সংশোধনের আবেদন ফি ১০০ টাকা। কিন্তু সরকারি এ নিয়ম না মেনে উপজেলার বর্নি ইউনিয়নের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর শিমুল বাড়তি টাকা নিয়ে থাকেন বলে অভিযোগ তুলেছেন সেবাগ্রহীতারা। প্রতি জন্ম সনদে ৫০০ ও ১০০০-২০০০ টাকা ও বয়স সংশোধনে ৫-১০ হাজার টাকা দাবি করে থাকেন তিনি। এমনই অভিযোগ এ ইউনিয়নের সেবাগ্রহীতাদের। 

জন্মনিবন্ধন নিতে আসা স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর শিমুল বিশ্বাস জন্ম সনদ ডিজিটাল করতে ১০০০ হাজার টাকা নিয়ে থাকেন। এ ছাড়া বয়স সংশোধনে ৫-১০ হাজার টাকাও দাবি করেন তিনি। সরকারি নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে ওই হিসাব সহকারী বাণিজ্য করে থাকেন। তাই তাকে আইনের আওতায় আনতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন স্থানীয়রা। 

বর্নি ইউনিয়নের বাসিন্দা কাজলী বেগম জানান, ‘আমার ১৮ বছর বয়সী মেয়ের জন্ম নিবন্ধন করতে সার্টিফিকেটসহ অন্যান্য কাগজপত্র জমা করলে আমাকে এক সপ্তাহ পরে আসতে বলে হিসাব সহকারী শিমুল। এক সপ্তাহ পরে গেলে বলে জন্ম নিবন্ধন করতে ২০০০ টাকা দিতে হবে। তাই জন্ম নিবন্ধন না করেই ফিরে যাচ্ছি।’ 

দক্ষিণ বর্নি গ্রামের রাঙ্গা হোসেনের স্ত্রী সোমা জানান, ‘১৮ বছর বয়সী মেয়ে ও তাঁর জন্ম নিবন্ধন করতে গিয়ে শিমুল বিশ্বাসকে ৭০০ টাকা দিয়েছি। কিন্তু দুই মাস ধরে ঘুরেও সেই জন্ম নিবন্ধন এখনো পাইনি।’ 

স্থানীয় বিদ্যালয়ের ছাত্র নাসরুল জানান, ‘তার বয়স সংশোধন করতে গেলে শিমুল বিশ্বাস ৫ম শ্রেণি পাশের সার্টিফিকেট চায়। পরে সার্টিফিকেট নিয়ে গেলে বলে এতেও বয়স সংশোধন হবে না। আর কি কাগজপত্র লাগবে জানতে চাইলে ৫ হাজার দাবি করে। তাই আর জন্মনিবন্ধন করিনি। আমরা গরিব মানুষ এত টাকা কোথায় পাব।’ 

তবে এ বিষয়ে বর্ণি ইউনিয়ন পরিষদের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর শিমুল বিশ্বাস এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, জন্মনিবন্ধনের যদি সরকার নির্ধারিত ফি যদি ৫০ টাকা হয় সেখানে ১০০ টাকা ও ১০০ টাকা থাকে সেখানে আমরা দেড় শ বা ২০০ টাকা নেই। কিছু ব্যক্তি বা পরিবারের সদস্যদের জন্ম নিবন্ধনে আমরা সরকারি ফিও ছাড় দিয়ে থাকি। তাই সেই টাকা পোষাতে অন্যদের কাছ থেকে একটু বাড়তি রেট নিতে হয়। 

এ ছাড়া ৫-১০ হাজার টাকা দাবি করার বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, আমি কারওর কাছ থেকেই এত টাকা দাবি করি নি। 

বর্নি ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল বলেন, আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর সবাইকে বলেছি সরকারি ফি যেটা সেটাই নিতে হবে। যদি শিমুল বিশ্বাস বাড়তি টাকা নিয়ে থাকে সে দায়দায়িত্ব তাঁর। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এ বিষয়ে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম হেদায়েতুল ইসলাম আজকের পত্রিকাকে বলেন, আপনাদের (সাংবাদিকদের) মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। সরকার নির্ধারিত ফি থেকে বেশি টাকা নেওয়া অপরাধ। তাই এ বিষয়ে দ্রুত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    গাজীপুরে শিল্প-কারখানায় এলাকাভিত্তিক সাপ্তাহিক ছুটির তালিকা

    জাবি উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনের ফলাফলে শীর্ষে আমির হোসেন 

    গাজীপুরে কাভার্ডভ্যান চাপায় নিহত ১ 

    বাড়ির চারদিকে দেয়াল তুলে ৩ পরিবারের যাতায়াত বন্ধের অভিযোগ

    নাশকতার মামলায় স্বেচ্ছাসেবক দলের ৭ নেতা রিমান্ডে

    ঢামেকে চলছে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি, শনাক্ত হয়নি কেউ

    চবির হলে ৪ ছাত্রলীগ নেত্রীর মধ্যে মারামারি, তদন্ত কমিটি গঠন

    ভেন্টিলেশনে সালমান রুশদি, কথা বলতে পারছেন না

    আষাঢ়ে নয়

    তুইও মরবি, আমাদেরও মারবি

    নতুন পরিচয়ে সোহানা সাবা

    তারেক মাসুদ ছিলেন স্বপ্নের নায়ক