Alexa
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১

সেকশন

 

নিখোঁজের তিন দিন পর নদী থেকে লাশ উদ্ধার, পরিচয় শনাক্ত

আপডেট : ১০ আগস্ট ২০২১, ২০:০৩

মুলাদীতে নিখোঁজের তিন দিন পর নদী থেকে নুরু বাবুর্চির লাশ উদ্ধার। প্রতীকী ছবি মুলাদীতে নিখোঁজের তিন দিন পর নদী থেকে লাশ উদ্ধার করে দুই ঘণ্টার মধ্যে নুরু বাবুর্চির পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে তাঁর স্ত্রী খাজিদা বেগম লাশটি শনাক্ত করেন। এর আগে গত শনিবার থেকে নিখোঁজ ছিলেন নুরু বাবুর্চি। তিনি হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়ার মৃত হাচেন বাবুর্চির ছেলে। 
 
জানা গেছে, আজ বিকেলে নয়াভাঙ্গনী নদীর হিজলা-মুলাদী সংযোগ সেতুর উত্তর দিকে লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা মুলাদী থানায় খবর দেন। থানা-পুলিশ সাড়ে ৪টায় নদী থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ের লাশটি উদ্ধার করেন। লাশ উদ্ধারের সংবাদ পেয়ে নুরু বাবুর্চির স্ত্রী ও তাঁর স্বজনরা থানায় আসেন। পরে মৃতের কাপড় চোপর এবং মাথা দেখে লাশটি শনাক্ত করেন। 
 
মুলাদী থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নুরু বাবুর্চিকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তাঁর পেটসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান ক্ষতবিক্ষত করা হয়েছে। পরে তাঁর হাত-পা বালুর বস্তায় বেঁধে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। হাত খুলে যাওয়ায় লাশ ভেসে উঠেছে। 
 
মৃতের স্ত্রী খাদিজা বেগম বলেন, গত ৭ আগস্ট বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাসায় ফেরেননি আমার স্বামী। পরে বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ নেওয়া হয়। তাঁকে না পেয়ে গতকাল সোমবার হিজলা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। কিন্তু হিজলা থানার ওসি অসীম সরকার জিডি না করে উল্টো আমার ছেলে ইমরান হোসেন (২০), এনামুল হোসেন (১৮) এবং এহসান (১৬) কে আটক করেন। পরে আজ সকালে তাদের জেল হাজতে পাঠিয়ে দেন। 

খাদিজা বেগম আরও বলেন, আজ বিকেলে মুলাদী থানায় লাশ উদ্ধারের সংবাদ পেয়ে সেখানে ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে আমার স্বামীর মৃতদেহ দেখতে পাই। 

জিডি না করার বিষয়ে হিজলা থানার ওসি বলেন, নুরু বাবুর্চির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছিল মামলার ভয়ে তিনি পালিয়ে রয়েছেন। তাই হিজলা থানায় জিডি করা হয়নি। এ ছাড়া তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে সর্বশেষ কথা বলার সময় নুরু বাবুর্চি মুলাদী থানার জনৈক কাসেমের সঙ্গে রয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন। তাই তাঁদের মুলাদী থানায় জিডি করতে বলা হয়েছিল। 

জিডি করতে আসা নুরু বাবুর্চির তিন ছেলেকে জেলহাজতে পাঠানোর বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। 

মুলাদী থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান বলেন, স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে আজ বিকেলে উপজেলার নয়াভাঙ্গনী নদী থেকে একটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাঁর স্বজনরা এসে লাশটি শনাক্ত করেছেন। তবে লাশটি নুরু বাবুর্চির কিনা বিষয়টি নিশ্চিত করতে সিআইডির সহযোগিতা নেওয়া হবে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    সুন্দরগঞ্জে সাবেক ইউপি সদস্যের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

    মুরাদকে যারা সহযোগিতা করেছে তাদেরও বিচার চাইলেন নজরুল ইসলাম খান

    দুদকের মামলায় মানিকগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতা মট্টুসহ দুজন গ্রেপ্তার

    চট্টগ্রামে বদ্ধভূমি সংরক্ষণে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর কাছে অনুরোধ

    আজ পটুয়াখালী পাক-হানাদারমুক্ত দিবস, ৫০ বছরেও সংরক্ষিত হয়নি ইতিহাস

    সুন্দরগঞ্জে সাবেক ইউপি সদস্যের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

    মুরাদকে যারা সহযোগিতা করেছে তাদেরও বিচার চাইলেন নজরুল ইসলাম খান

    মিরপুরে ই-কারখানার যাত্রা শুরু

    মুরাদ হাসানের পদত্যাগ যথেষ্ট নয়: মঈন খান

    ভারতে ফের আফস্পা বাতিলের দাবি

    দুদকের মামলায় মানিকগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতা মট্টুসহ দুজন গ্রেপ্তার