Alexa
রোববার, ২২ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

ইভিএম বক্স বঙ্গোপসাগরে ফেলে দেওয়া হবে: গয়েশ্বর

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:৩২

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। ফাইল ছবি আগামী নির্বাচনের আগেই ইভিএম বক্স বঙ্গোপসাগরে ফেলে দেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আজ শনিবার সকালে রাজধানীর প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, সুচিকিৎসা এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও ন্যায়বিচারের দাবিতে জিয়া নাগরিক ফোরাম আয়োজিত আলোচনাসভায় তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জকে তাঁরা উদাহরণ সৃষ্টি করতে চান। তাঁরা মনে করেন নারায়ণগঞ্জে সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে। আমার একটা কথা মনে হয়, এই সরকারের নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হয় এই কথা শুনলে পশুপাখি, জানোয়ারও বিব্রত বোধ করে। সরকার বিব্রত বোধ করে না কেন? আগামী নির্বাচনের আগেই এই ইভিএম বক্স বঙ্গোপসাগরে ফেলে দেওয়া হবে।’ 

করোনাকে সরকার রাজনৈতিক ঢাল হিসেবে নিয়েছে দাবি করে এই বিএনপি নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে যেভাবে সারা দেশে গণজোয়ার শুরু হয়েছে, তাতে সরকার বিধিনিষেধ, ১৪৪ ধারা দিচ্ছে। সরকার ভীতসন্ত্রস্ত। বিএনপির শক্তি সরকার পরিমাপ করতে পেরেছে। সরকার যে জনরোষে পড়েছে, তা মোকাবিলা করতেই করোনাকে আত্মরক্ষার জন্য ব্যবহার করেছে ৷ শতকরা ৮০ ভাগ জনগণ মনে করে, এই বিধিনিষেধ রাজনৈতিক আন্দোলন মোকাবিলা করার জন্য দেওয়া হয়েছে, জনস্বাস্থ্য বিবেচনা করে নয়।’ 

গয়েশ্বর বলেন, ‘আমাদের একজন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আছেন, তিনি বলেছেন আমেরিকায় লক্ষাধিক লোক প্রতিবছর নিখোঁজ হয়। আমি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলব, বাংলাদেশের অপকর্মের জন্য যদি আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে আর আপনি যখন নিশ্চিত আমেরিকায় এ রকম ঘটনা ঘটে, তাহলে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আমেরিকাকে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছি না কেন? আর আমেরিকায় যেটা ঘটে, সেটাই বাংলাদেশে ঘটবে এটাকে জায়েজ করার চেষ্টা কেন করেন?’

গয়েশ্ব বলেন, ‘কিছুদিন আগে নির্বাচন কমিশন আইন নিয়ে কিছু বিলাপ-প্রলাপ হলো। পরে সরকারি দলই আইনের প্রস্তাব করল। মাঝখানে আইনমন্ত্রী বললেন, আইন তো জটিল ব্যবস্থা। এত তাড়াতাড়ি করা যাবে না। এখন শুধু আইন না, ইতিপূর্বে নির্বাচন কমিশন যা যা করেছে, তার সবকিছুর বৈধতাও দিয়েছে এই আইনের মাধ্যমে। কিন্তু তাঁরা এত দিন যা করছেন তা বেআইনি। এখন একটা আইনি প্রলেপ দেওয়া হলো। অর্থাৎ, এত দিন বিনা কাবিনে সংসার করছেন, এখন কাবিন করা হলো।’ 

সরকারের সমালোচনা করে গয়েশ্বর আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা বিদেশে চলে যায়, রিজার্ভ চুরি হয়। আজ পর্যন্ত কেউ ধরা পড়ে না। এই সরকার রিজার্ভ চুরির সঙ্গে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে জড়িত না হলে কাউকে ধরার চেষ্টা করে না কেন? কত খুনের আসামি ধরা পড়ে, সাগর-রুনীর আসামি ধরা পড়ে না কেন? এই রিজার্ভ চোর, খুনিদের প্রশাসন চেনে কিন্তু ধরে না।’ 

জেলকে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পুরো দেশটাই যখন জেলখানা, সেখানে ছোট্ট একটা কক্ষে যেতে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। পালাক্রমে এখানে অনেকেই আসবে, বের হবে। সামনে জেলখানা আরও বড় করতে হবে। কারণ পরে যাঁরা ক্ষমতায় আসবেন, তাঁরা এত চোর, খুনি, সন্ত্রাসীদের এই জেলখানায় জায়গা দেওয়া সম্ভব হবে না। আমাদের এখন আর জেলে যাওয়ার পালা না, এখন জেলে যাওয়ার পালা তাঁদের।’ 

জিয়া নাগরিক ফোরামের সভাপতি লায়ন মিয়া মো. আনোয়ারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    দেশব্যাপী ভয় ছড়িয়ে দিচ্ছে সরকার: মির্জা ফখরুল

    বিএনপি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবে না: দুদু

    নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে একচুলও নড়ব না: কাদের

    ‘ঢাকায় বসে নেতাগিরি করলে হবে না’

    গণমাধ্যমকে সরকারের মুখপাত্র হিসেবে কাজ করতে বাধ্য করা হচ্ছে: মির্জা ফখরুল

    বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ 

    পাউবো কার্যালয়ে সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ

    বিএসটিআইয়ের আওতায় আরও ৮৯টি পরীক্ষাগার হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী

    রামগড়ে শিক্ষকের ওপর যৌন নিপীড়নের অভিযোগ মিথ্যা, দাবী পরিবারের

    নামতে শুরু করেছে পানি, বাড়ছে দুর্গন্ধ

    বহুতল নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    নেত্রকোনায় স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় মামলা