Alexa
রোববার, ২২ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ধসের শঙ্কা

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৩০

 টাঙ্গাইলের ছয়আনি বাজারে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে বাণিজ্যিক কার্যক্রম। গতকাল তোলা ছবি।tআজকের পত্রিকা ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণার ৯ বছর পরেও জরাজীর্ণ ভবনে ব্যবসা পরিচালনা করছেন টাঙ্গাইলের ছয়আনি বাজারের ব্যবসায়ীরা। যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। দ্রুত ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণের দাবি দোকানদার ও স্থানীয় ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতাদের। আর পৌর কর্তৃপক্ষ বলছে, ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের জায়গায় একটি আধুনিক ভবন নির্মাণ করে দেওয়ার প্রক্রিয়া হাতে নেওয়া হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, ১৯৮০ সালে পৌর এলাকার ছয়আনি বাজারে এই ভবন নির্মাণ করে পৌরসভা। দোতলা এই ভবনে ২৮৪ জন ব্যবসায়ী ব্যবসা করছেন। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ২০১৩ সালে ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়। তবে নানা কারণে এটা ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ সম্ভব হয়নি। ফলে ঝুঁকি নিয়েই সেখানে ব্যবসা করছেন অনেক ব্যবসায়ী।

এসব ব্যবসায়ী বলছেন, ভবনের অবস্থা খুব খারাপ হয়ে পড়েছে। ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ছে। রড বেরিয়ে গেছে। যেকোনো সময় ভেঙে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা তাঁদের।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ভবনের বেশ কয়েকটি পিলারে ফাটল ধরেছে। অনেক জায়গায় ভেঙে গেছে। আবার ভবনের বিভিন্ন অংশে ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে রড বের হয়ে আছে। এরই মাঝে ব্যবসা করছেন ২৮৪ জন ব্যবসায়ী।

বাজারের ভেতরে দড়ি-রশি, সুতার পসরা সাজিয়ে বসে আছেন এক ব্যবসায়ী। ঠিক তাঁর মাথার ওপরে ছাদের কিছু অংশের সিমেন্টের পলেস্তারা খসে পড়েছে। পাশের দেয়ালটিও কিছুটা স্যাঁতসেঁতে। এর মধ্যেই বসে আছেন তারেক ভূঁইয়া নামের অপর এক ব্যবসায়ী। তিনি বলেন, এই দোকান থেকেই তাঁর সংসার চলে, অন্য কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই। তাই ঝুঁকি নিয়েই দীর্ঘদিন ধরে এখানেই ব্যবসা করছেন তিনি।

চাল-ডালের ব্যবসা করেন তুলসী সেন নামের অপর এক ব্যবসায়ী। তিনি বলেন, ‘এখন ভবনের অবস্থা খুব নাজুক হয়ে পড়েছে। প্রতিদিনই ভয় নিয়ে দিন পার হচ্ছে। আমাদের অন্য কোথাও পুনর্বাসন করে এটা ভেঙে ফেলা প্রয়োজন।’

এই ব্যবসায়ী আরও বলেন, ‘ছাদের পলেস্তারা খসে পড়েছে। বৃষ্টি নামলে ছাদ চুঁইয়ে পানি পড়ে। এর মধ্যেই ব্যবসা করতে হচ্ছে। যাওয়ার তো জায়গা নাই। তাই বাধ্য হয়ে কষ্ট করে ব্যবসা করছি।’ কথা হয় আব্দুলাহ খান নামের এক দোকানমালিকের সঙ্গে।’ তিনি বলেন, ‘প্রায় ২৫ বছর ধরে এখানে ব্যবসা করছি। ভবনের অনেক জায়গায় ফাটল ধরেছে। ছাদ থেকে সিমেন্ট খসে পড়ছে। ভয় নিয়েই ব্যবসা করতে হচ্ছে। কিন্তু অন্য কোথাও দোকান করার জায়গা নেই, তাই এখানেই পড়ে আছি।’

এ ছাড়া বাজারের ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সেলিম আল মামুনসহ অনেক দোকানমালিকই জানালেন, বিকল্প কোনো ব্যবস্থা না থাকায় ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও সেখানে ব্যবসা করছেন। তাঁদের দাবি, এখানকার ব্যবসায়ীদের অন্য কোথাও দোকান করার ব্যবস্থা করে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ করুক পৌর কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে ছয়আনি বাজার মার্কেটিং সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান বলেন, ‘২০১৩ সাল থেকেই ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন জটিলতায় ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন করা সম্ভব হয়নি। আমাদের দাবি, নতুন ভবন নির্মাণ করে যাঁরা এখন ব্যবসায়ী আছেন, তাঁদের আবার বরাদ্দ দেওয়া হোক।’

আর ঝুঁকিপূর্ণ ভবন নিয়ে পাঁচআনি-ছয়আনি বাজার সাধারণ ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আহছান খান আছু বলেন, ভবনটির পিলার ও ছাদের বেশ কিছু অংশ ধসে পড়েছে। যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই ভবনটি দ্রুত ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ করা জরুরি।

পৌর মেয়র এস এম সিরাজুল হক বলেন, ‘একটা প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। সেই মোতাবেক ত্রিপক্ষীয় চুক্তি করতে যাচ্ছি। অল্প সময়ের মধ্যেই নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    সেচ খরচে দিশেহারা কৃষক

    চার শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত

    অল্প বৃষ্টিতেই কোমর পানি

    ঝুঁকিতে বসতভিটা ও কৃষিজমি

    সখীপুরে ঝড়-বৃষ্টিতে পাঁচ সরকারি কার্যালয় জলাবদ্ধ

    চিকিৎসার টাকা জোগাতে উপহারের ঘর বিক্রি

    ঢাকা টেস্টে দুই পরিবর্তন নিয়ে নামবে শ্রীলঙ্কা

    ভারতে বিভিন্ন আইনের অপব্যবহার বেড়ে চলেছে: আর্টিকেল নাইনটিন

    বঙ্গবন্ধু কেমিক্যাল মেটেরোলজি অলিম্পিয়াডে ১ম শাবিপ্রবির রিফাত

    মৃত্যুর খবর পেলেই ঘোড়ায় চড়ে ছোটেন মনু মিয়া

    পাবনায় চোর সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

    বিএলএফ ও ট্যানারি ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের মে দিবস উদ্যাপন