Alexa
রোববার, ২২ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

পুনর্বাসন না করেই উচ্ছেদ, খোলা আকাশের নিচে শত শত পরিবার

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৫:১২

খোলা আকাশের নিচে শত শত পরিবার। ছবি: আজকের পত্রিকা  পটুয়াখালীর লাউকাঠি নদীর তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহীন মাহমুদের নেতৃত্বে প্রথম দিনে লঞ্চঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে এ উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। এদিকে পুনর্বাসন না করায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু করায় বিপাকে পড়েছেন শতাধিক অসহায় পরিবার। এসব পরিবারগুলো তীব্র শীতের মধ্যে এখন শহীদ আলাউদ্দিন শিশুপার্কে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন। 

জানা যায়, পটুয়াখালী জেলা শহরের দুই পাশ দিয়ে বহমান লাউকাঠি ও লোহালিয়া নদী। এক সময়ের খরস্রোতা নদী দুটি দখল হতে হতে এখন প্রবাহ ছোট হয়ে আসছে। লোহালিয়া নদীর তীরের জৈনকাঠি থেকে শুরু হয়ে লাউকাঠি নদীর ব্রিজ পর্যন্ত সহস্রাধিক অবৈধ স্থাপনা রয়েছে। এসব অবৈধ স্থাপনার মধ্যে শতাধিক রয়েছে বহুতল ভবন। বিভিন্ন সময়ে স্থানীয় প্রশাসন এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান করলেও কিছুদিনের মধ্যে আবারও দখল হয়ে যায়। কিন্তু এবারও উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে তবে পুরোটাই উচ্ছেদ হবে নাকি প্রভাবশালীরা এর বাইরে থাকবে এ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে শহরবাসী। 

ওই এলাকার বাসিন্দা চায়ের দোকানি রাহিমা বেগম বলেন, ‘আমার জন্মের পর থেকে দেখেছি এখানে আমাদের ঘরবাড়ি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছে, আর আমরা নিজেরা ঘর স্থাপন করে বসে আছি সেগুলো ভেঙে রাস্তায় নামিয়ে দিচ্ছে। একদিন আগে মাইকিং করেছে আমাদের এখান থেকে চলে যেতে হবে। কোনো  নোটিশ দেয়নি এত জরুরি ভাবে ভেঙে আমাদের রাস্তায় কেন নামানো হলো আমরা সেটাই বুঝতে পারছি না। আমাদের পুনর্বাসন করুন, আমাদের থাকার জায়গা দিন, এই শীতের মধ্যে আমরা কীভাবে রাত্রিযাপন করব। আমাদের এই জায়গা ছাড়া কোথাও থাকার মতো জায়গা নেই।’ 

দিনমজুর মো. নিজাম সিকদার বলেন, ‘আমি এখানে ১২ বছর ধরে আছি। দিনমজুরের কাজ করে সংসার চালাই। এখন কোথায় যাব, কার কাছে যাব? এই মাঘ মাসের শীতের মধ্যে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে কীভাবে দিন কাটাব? আমাদের দুইটা মাস সময় দিলেও হতো। অপরদিকে নদীর তীরে সরকারি খাস জমিতে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে বটে। কিন্তু থেকেই যাচ্ছে সরকারি খাস জমিতে গড়ে ওঠা আলোচিত সেই বহুতল পাকা ভবনগুলো। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞার কাগজপত্র দেখিয়ে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করেন ভবনের মালিকেরা। এসব ভবন মালিকেরা এ জমি তাঁদের মালিকানাধীন বলে দাবি করছেন।’ 

ওই এলাকার বৃষ্টি এন্টার প্রাইজ ভবনের মালিক মো. হাফিজুর রহমান সবির গাজী বলেন, ‘এই নদীর তীরে অন্তত ৩৯টি স্থাপনা নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা রয়েছে ও আদালতের স্থায়ী নিষেধাজ্ঞাও রয়েছে। তাই আদালতের মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত প্রশাসন এসব ঘর ভাঙতে পারে না। এ ছাড়া অন্যান্য স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য অন্তত দুই/তিন মাস সময় দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করা হয়েছে।’ 

ওই এলাকার পৌর কাউন্সিলর আলাউদ্দিন আলাল বলেন, ‘আমার ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা হলো এই পরিবারগুলো আমি তাদের জন্য অনেক অফিসে অফিসে গিয়েছি যেন তাঁদের পুনর্বাসন করা হয়। অন্তত পক্ষে খালি জায়গা দেওয়া  হয় যেন তাঁরা ঘর উঠিয়ে এই মহামারির মধ্যে থাকতে পারে। এখন উচ্ছেদ অভিযান বন্ধের জন্য আমি তাঁদের কাছে অনুরোধ করেছি যেন কিছুদিন পরে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। কিন্তু তারা আমার এই কথা রাখেননি।’ 

এ ব্যাপারে উচ্ছেদ অভিযানের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহীন মাহমুদ জানান, নদীর তীরের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। তবে, যারা উচ্চ আদালতের স্থায়ী নিষেধাজ্ঞার কাগজপত্র দেখাতে পারবেন শুধুমাত্র তাঁদেরগুলো ভাঙা আপাতত স্থগিত রাখা হবে। প্রথম দিনে লঞ্চঘাট এলাকা থেকে শুরু করা হয়েছে এবং তা পুরো অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা পর্যন্ত চলবে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    মুখোমুখি ট্রাকশ্রমিকদের দুই গ্রুপ, অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি

    নিজেই অসুস্থ হাসপাতাল, ধসের আতঙ্ক নিয়ে চলছে সেবা

    কলাপাড়ায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় সাংবাদিকসহ আহত ২ 

    ছেলেদের মারধরে বাবার মৃত্যু, গ্রেপ্তার মা ও ২ ছেলে

    বিয়ের ২৬ দিন পর গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

    চরফ্যাশনে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার

    টেস্ট দলে মোস্তাফিজ, সাদা বলে ফিরলেন বিজয়

    এমপি কর্তৃক শিক্ষককে লাঞ্ছিতের ঘটনায় আসকের নিন্দা ও উদ্বেগ

    ঢাকা টেস্টে দুই পরিবর্তন নিয়ে নামবে শ্রীলঙ্কা

    ভারতে বিভিন্ন আইনের অপব্যবহার বেড়ে চলেছে: আর্টিকেল নাইনটিন

    বঙ্গবন্ধু কেমিক্যাল মেটেরোলজি অলিম্পিয়াডে ১ম শাবিপ্রবির রিফাত

    মৃত্যুর খবর পেলেই ঘোড়ায় চড়ে ছোটেন মনু মিয়া