Alexa
রোববার, ২২ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:৫০

সমাধিগুলো কিছু প্যানডেন্টের মতো, আর কিছু আংটির মতো। ছবি: সিএনএনের সৌজন্যে সৌদি আরবে সাড়ে চার হাজার বছর আগের একটি মহাসড়ক নেটওয়ার্ক আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা। এই সড়কের পাশেই রয়েছে সুসংরক্ষিত প্রাচীন সমাধির সারি। 

সমাধিগুলোর বেশিরভাগই হয় প্যানডেন্ট আকৃতির বা আংটির মতো। আংটির মতো সমাধিগুলো দুই মিটার পর্যন্ত উচ্চতার প্রাচীর দ্বারা বেষ্টিত একটি পাথরের ফলকের মতো। আর প্যানডেন্ট আকৃতিরগুলোতে লেজের মতো বর্ধিত অংশ আছে। 

মহাসড়কের দুই পাশে সমাধির সারি। ছবি: সিএনএনের সৌজন্যে রেডিওকার্বন ডেটিং ব্যবহার করে গবেষকরা নির্ধারণ করেছেন, একটি নমুনা ২ হাজার ৬০০ থেকে ২০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ আগের। যদিও সমাধিগুলো প্রায় এক হাজার বছর আগে পর্যন্ত পুনর্ব্যবহার করা হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা গত বছর জুড়ে এ নিয়ে বিস্তর অনুসন্ধান চালিয়েছেন। এর মধ্যে ছিল হেলিকপ্টার দিয়ে আকাশ থেকে পরিচালিত জরিপ, স্থল জরিপ এবং খনন। এছাড়া স্যাটেলাইট চিত্রও পরীক্ষা হয়েছে। 

গত ডিসেম্বরে হোলোসিন জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম আরবের আল-উলা এবং খায়বার কাউন্টি দুটিতে বিশাল দূরত্ব পর্যন্ত বিস্তৃত এ মহাসড়ক। এটি মূলত ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পথ’, অর্থাৎ শবযাত্রার জন্য ব্যবহৃত হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

গবেষক ম্যাথিউ ডাল্টন মার্কিন সম্প্রচার মাধ্যম সিএনএনকে বলেন, ‘এই অঞ্চলে বসবাসকারী লোকেরা হাজার হাজার বছর ধরে এই সড়ক সম্পর্কে জানে। কিন্তু আমি মনে করি, আমরা স্যাটেলাইট ইমেজ পাওয়ার আগে পর্যন্ত জানা যায়নি এই প্রত্নস্থানটি কতটা ব্যাপক।’ 

আশ্চর্যজনকভাবে এখনো আসল উচ্চতায় দাঁড়িয়ে আছে সমাধিগুলো। ছবি: সিএনএনের সৌজন্যে ডাল্টন বলেন, শেষকৃত্যের পথগুলো, যা তিনি হেলিকপ্টার থেকে দেখেছিলেন, শত শত, হয়তো হাজার হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। বর্তমানেও প্রধান সড়কে ভ্রমণকারীরা প্রায়শই একই রুট অনুসরণ করে। 

ডাল্টন আরও বলেন, ‘প্রধান রাস্তাগুলোও একই রুট অনুসরণ করে কারণ দুটি স্থানের মধ্যে এটিই সংক্ষিপ্ততম পথ। কিছু ক্ষেত্রে সমাধিগুলো এতো ঘন ঘন স্থাপিত যে আপনি সড়ক ব্যবহারে বাধ্য হবেন।’ 

গবেষক মেলিসা কেনেডি সিএনএনকে বলেন, ‘সমাধিগুলো ৪ হাজার ৫০০ বছর পুরোনো। এগুলো এখনও যে তাদের আসল উচ্চতায় দাঁড়িয়ে আছে, সেটি সত্যিই অবাক করার মতো। আমি মনে করি, এটিই বিশেষ করে সৌদি আরবকে বাকি অঞ্চল থেকে আলাদা করে। এগুলো যেভাবে সংরক্ষিত হয়েছে সেটি অবিশ্বাস্য!’ 

কেনেডির বিশ্বাস, এককভাবে বা ছোট ছোট গ্রুপকে এখানে সমাহিত করা হতো। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পথ বরাবর প্রায় ১৮ হাজার সমাধি চিহ্নিত করেছেন তাঁরা। এর মধ্যে নমুনা হিসেবে খননের জন্য ৮০টিকে বেছে নেওয়া হয়েছে। 

গবেষকরা মনে করছেন, সমাধিগুলোর অনেক আগে থেকেই রাস্তাটি ছিল। তবে তাঁরা এখনও নিশ্চিত নন, কেন সমাধিগুলো সড়ক বরাবর তৈরি করা হয়েছিল। যদিও পরবর্তীতে গ্রিস এবং রোমে জমির মালিকানার সঙ্গে সম্পর্কিত একই ধরনের প্রথার দিকে ইঙ্গিত করেছেন কেনেডি। 

কেনেডি বলেন, ‘সম্ভবত মালিকানা বোঝানোর একটি উপায় হিসেবে সমাধিগুলো নির্মিত হয়েছে। কারণ আপনি আপনার প্রিয়জনকে আপনার চলাচলের রাস্তার পাশেই সমাধিস্থ করবেন, যাতে প্রায়শই তাঁদের কবর অতিক্রম করেন এবং তাঁদের কথা আপনার স্মরণ হয়।’ 

সমাধিগুলো কিছু প্যানডেন্টের মতো, আর কিছু আংটির মতো। ছবি: সিএনএনের সৌজন্যে প্রত্নতাত্ত্বিক দলটির জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ হবে আরও রেডিওকার্বন ডেটিং করা এবং ডেটা বিশ্লেষণ করা। ডাল্টন বলছেন, সড়কগুলো ইয়েমেন পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। কারণ ইয়েমেন এবং উত্তর সিরিয়ায় একই ধরনের সমাধি দেখতে পাওয়া যায়। 

কেনেডি বলছেন, তৃতীয় সহস্রাব্দ একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়কাল। কারণ এই সময়টাতেই মিশরের পিরামিড নির্মিত হয়। এখানে অনেকগুলো ভিন্ন সংস্কৃতির যোগাযোগ ঘটেছে। ফলে এই সময়কালে সৌদি আরবে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার নিদর্শনটি নতুন গবেষণার পথে খুলে দিতে পারে।

বিজ্ঞান সম্পর্কিত আরও পড়ুন:

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ক্যানসার কোষের সম্পূর্ণ জিনোম সিকোয়েন্স আবিষ্কার

    ধেয়ে আসছে কুতুব মিনারের চেয়ে সাড়ে ৩ গুণ বড় গ্রহাণু

    মস্তিষ্কে মাইক্রোচিপ প্রতিস্থাপন, ‘সম্পূর্ণ বাক্যে’ যোগাযোগ করতে পারবেন পক্ষাঘাতগ্রস্ত ব্যক্তিরা

    পাটিগণিত করার জন্য মস্তিষ্কে রয়েছে নির্দিষ্ট এলাকা

    ১০ কোটি রং দেখতে পান যিনি তাঁর চোখে পৃথিবী কেমন?

    মঙ্গল গ্রহে প্রাণের প্রমাণ পেল নাসার রোবট

    পাবনায় চোর সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

    বিএলএফ ও ট্যানারি ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের মে দিবস উদ্যাপন

    সিঙ্গাপুরের প্রধান কোচ হলেন সালমান বাট

    ভারত থেকে গমভর্তি জাহাজ এসেছে বন্দরে

    চট্টগ্রামে ১৩ পুলিশ আহতের ঘটনায় চালক গ্রেপ্তার

    পাউবো কার্যালয়ে সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ