Alexa
রোববার, ২২ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে ফসলের ক্ষতি

আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৪২

বারণ সত্ত্বেও সদর উপজেলার গালা ইউনিয়নের একটি সরিষাখেতে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতে ব্যস্ত কয়েক যুবক। আজকের পত্রিকা টাঙ্গাইলে এবার সরিষার আবাদ বেড়েছে। অনুকূল আবহাওয়া থাকায় ভালো ফলনের আশা করছেন চাষিরা। তবে সরিষা ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে ফসলের ক্ষতি করছেন দর্শনার্থীরা–এমন অভিযোগ বিভিন্ন এলাকার চাষিদের। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষক। খেত রক্ষায় রীতিমতো সাইনবোর্ড টাঙিয়েছেন অনেকে।

সরেজমিনে সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, সরিষার ফুলে বর্ণিল সাজে সেজেছে বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ। দৃষ্টিজুড়ে শুধু হলুদের সমারোহ। খেতে বসছে পোকাখাদক বুলবুলি ও শালিকের ঝাঁক। পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষিরা। আর এই সৌন্দর্যের টানে আশপাশ ও দূর-দূরান্ত থেকে বেড়াতে আসছেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। আবার প্রাকৃতিক এই সৌন্দর্য ধরে রাখতে তরুণ-তরুণীরা ছবি তুলছেন কিংবা ভিডিও ধারণ করে রাখছেন। এ সময় তাঁরা নিজের অজান্তেই খেত মাড়িয়ে ক্ষতিসাধন করছেন বলে অভিযোগ চাষিদের। এই অতি উৎসাহী দর্শনার্থীদের থামাতে খেতের পাশে লাগানো হয়েছে সাইনবোর্ড। অনেকে সেই সাইনবোর্ডের পাশে দাঁড়িয়েই তুলছেন ছবি।

সদর উপজেলার গালা ইউনিয়নের সরিষাচাষি মো. আলাল হোসেন মোল্লা বলেন, ‘প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে চলতি মৌসুমে সরিষার বাম্পার ফলন আশা করছি। তবে আমার সরিষাখেত রাস্তার পাশে হওয়ায় অনেক মানুষ বেড়াতে আসেন। তাঁরা খেতের ভেতরে গিয়ে ছবি তোলেন। এতে তাঁদের পায়ের পাড়ায় অনেক গাছ নষ্ট হয়ে যায়। না করলেও শোনে না।’

সরিষাচাষি নুরুল ইসলাম বলেন, ‘সরিষাগাছে ফুল আসার পর থেকেই ঘুরতে আসছেন মানুষ। তাঁরা সরিষা ফুলের সঙ্গে ছবি তুলতে খেতের ভেতরে প্রবেশ করছেন। এ সময় তাঁদের পায়ের চাপায় সরিষাগাছ নষ্ট হয়। আমরা না করলেও শোনেন না। পরে সাইনবোর্ড টাঙিয়েছি। তাতেও কাজ হচ্ছে না।’

কথা হয় আরেক চাষি সুরুজ আলীর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘ঘুরতে এসে আমাদের খেত নষ্ট করছে, নিষেধ করলে উল্টো বলে, “যাওয়ার সময় ক্ষতির টাকা দিয়ে যাব।” কতক্ষণ আর খেত পাহারা দিয়ে রাখা যায়। আমি খুব বিরক্ত অনেক দর্শনার্থীর ওপর।’

জেলা কৃষি বিভাগের তথ্যানুযায়ী, এ বছর সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৫ হাজার ৭০০ হেক্টর। আবাদ হয়েছে ৫০ হাজার ৪৮৮ হেক্টর জমিতে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    সেচ খরচে দিশেহারা কৃষক

    চার শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত

    অল্প বৃষ্টিতেই কোমর পানি

    ঝুঁকিতে বসতভিটা ও কৃষিজমি

    সখীপুরে ঝড়-বৃষ্টিতে পাঁচ সরকারি কার্যালয় জলাবদ্ধ

    চিকিৎসার টাকা জোগাতে উপহারের ঘর বিক্রি

    এমপি কর্তৃক শিক্ষককে লাঞ্ছিতের ঘটনায় আসকের নিন্দা ও উদ্বেগ

    ঢাকা টেস্টে দুই পরিবর্তন নিয়ে নামবে শ্রীলঙ্কা

    ভারতে বিভিন্ন আইনের অপব্যবহার বেড়ে চলেছে: আর্টিকেল নাইনটিন

    বঙ্গবন্ধু কেমিক্যাল মেটেরোলজি অলিম্পিয়াডে ১ম শাবিপ্রবির রিফাত

    মৃত্যুর খবর পেলেই ঘোড়ায় চড়ে ছোটেন মনু মিয়া

    পাবনায় চোর সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ