Alexa
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

নাসিক নির্বাচন হবে সুষ্ঠু নির্বাচনের মডেল: কৃষিমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ জানুয়ারি ২০২২, ১১:৫৮

শনিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ স্মরণসভার আয়োজন করা হয়। ছবি: আজকের পত্রিকা নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচন একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের মডেল হবে। একই সঙ্গে এ নির্বাচন জাতীয় পর্যায়ে উদাহরণ সৃষ্টি করবে বলে মন্তব্য করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। 

আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে কৃষিবিদ শওকত মোমেন শাহজাহান, কৃষিবিদ আব্দুল মান্নান ও কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশার স্মরণসভায় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এ স্মরণসভার আয়োজন করে। 

স্মরণসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরিফ আহমেদ, সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এবং জাতীয় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক। 

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘শনিবার নাসিক নির্বাচন। এটি হবে নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ। অত্যন্ত সুন্দরভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার মাধ্যমে নির্বাচনটি জাতীয় ক্ষেত্রে একটি উদাহরণ সৃষ্টি করবে। নির্বাচন নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করার জন্য সরকার নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণ সহায়তা করছে।’ তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নের ধারাকে ধ্বংস করার জন্য এখনো ষড়যন্ত্র চলছে। এখনো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। 

সাম্প্রতিক আলোচিত বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অনেকে বলে এদেশে নাকি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হয়। আমি বলব, এখানে কোনো হত্যা করা হয় না। কোনো বিরোধীদলীয় নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয় না। যারা মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে, রেললাইনসহ বিভিন্ন স্থাপনা ধ্বংস করেছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। এ দেশে গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে কাজ করছে। এমনভাবে বিভিন্ন অপপ্রচার চালানো হচ্ছে যেন স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি বা কোনো অপশক্তি ক্ষমতায় আসে। তাই সবাইকে সম্মিলিতভাবে এই অশুভশক্তি মোকাবিলা করতে হবে।’ 

প্রয়াত তিন কৃষিবিদের স্মরণে মন্ত্রী বলেন, তাঁরা সংগ্রাম আন্দোলনের সিঁড়ি পেরিয়ে জাতীয় নেতৃত্বে জায়গা করে নিয়েছেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যারা এ দেশকে আরেকটি পাকিস্তান করার স্বপ্ন দেখত। তাদের বিরুদ্ধে চরম প্রতিকূল পরিবেশে রাজনীতি করেছিলেন এই তিনজন। যাঁরা দেশ গড়ার ভূমিকা রেখেছেন। 

ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু বলেন, ‘তিন কৃষিবিদের প্রত্যেকের সঙ্গে আমার অত্যন্ত গভীর সম্পর্ক ছিল। তিনজনই অত্যন্ত পরিশ্রমী স্বচ্ছ রাজনীতিবিদ ছিলেন। তাঁরা দুর্দিনে সফলতার সঙ্গে নেতৃত্ব দিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন, সংগঠনকে শক্তিশালী করেছেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘বাংলাদেশের কৃষি খাতের উন্নয়নে যে মানুষগুলো অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন, খুব কম সময়ের ব্যবধানে তাঁরা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। আজ আমরা তাঁদের স্মরণসভায় মিলিত হয়েছি। জাতীয় রাজনীতিতেও তাঁরা ছিলেন সমান গুরুত্বপূর্ণ।’ শেখ হাসিনা কৃষি ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিচ্ছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের মানদণ্ডে সারা বিশ্বে আজ মডেল। এর পেছনে একমাত্র কারণ কৃষিবিদ এবং কৃষি খাতে শেখ হাসিনার গুরুত্ব দেওয়া। 

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, ‘দেশ হিসেবে আমরা রাজনীতির ক্রান্তিলগ্নে। দেশে-বিদেশে সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আজ আমরা যাঁদের স্মরণসভা করছি তাঁরা এ রকম ক্রান্তিলগ্নে রাজনীতি করে গেছেন। তাঁদের জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে চলমান ক্রান্তিলগ্নে আমাদের শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত সৈনিক হিসেবে কাজ করতে হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    রাজধানীতে দুই বাসের চাপায় এক কিশোর নিহত

    ভবদহে বোরো অনিশ্চিত

    ভিজিডি দুস্থ নারীদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে: ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা

    রাজধানীতে দুই বাসের চাপায় এক কিশোর নিহত

    যুদ্ধে নিপীড়িত নারীর চরিত্র আজিযে

    ঘর সামলাচ্ছেন মোশাররফ, অফিস তানজিন তিশা

    মনোজ-ফারিয়ার দ্বন্দ্ব

    অতীশ দীপঙ্করের নতুন উপাচার্য জাহাঙ্গীর আলম

    ভবদহে বোরো অনিশ্চিত