Alexa
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 
যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ 

যেখানে দরকার সেখানে তদবির চালাব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:১২

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ফাইল ছবি  যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘যেখানে তদবির দরকার, সেখানে তদবির চালাব।’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রথা অনুযায়ী কাজ করাতে গেলে লবিস্ট নিয়োগ করে তদবির করাতে হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের (বিলিয়া) এক অনুষ্ঠান শেষে আজ শুক্রবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। 

অনুষ্ঠান শেষে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে লবিস্ট নিয়োগ কি কাজে দিল—এমন প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যদিও র‍্যাবের ওপর একটি নিষেধাজ্ঞা এসেছে, কিন্তু মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, র‍্যাব গত কয়েক বছরে সন্ত্রাস কমিয়েছে। তারা স্বীকার করেছে, স্বাধীন গবেষণা। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর সেগুলো চিন্তা-ভাবনা করবে। মার্কিন লক্ষ্য পুরো বিশ্বে সন্ত্রাস কমানো। র‍্যাব সন্ত্রাসী দূর করা, মাদক নির্মূল, মানব পাচার রোধ বেশ সফলতার সঙ্গে করছে। র‍্যাব বাংলাদেশের জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। মার্কিনরা বিষয়টি বুঝবে এবং তাদের অবস্থার পরিবর্তন হবে। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। বাংলাদেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার মতো কোনো ধাক্কা এলে বাংলাদেশের যদি কোথাও কোনো  দুর্বলতা থাকে, অবশ্যই সেগুলো নিয়ে কাজ করা হবে। 

গত সাত বছর ধরে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট প্রতিষ্ঠান নিয়োগ করে রেখেছে, আরও কোনো লবিস্ট প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগের পরিকল্পনা আছে কি না, জানতে চাইলে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আমি এসব বলতে পারব না। প্রত্যেক দেশই এ ধরনের লবিস্ট নিয়োগ করে। যুক্তরাষ্ট্রের একটি চর্চা এইটা। আর প্রত্যেক দেশেই এটা নিয়ম, আমাদের দেশে আমরা তদবির বলি। আর ওই দেশে (যুক্তরাষ্ট্রে) ইনস্টিটিউশন (প্রতিষ্ঠান) তদবির করে। যেখানে তদবির দরকার, সেখানে তদবির আমরা চালাব। দেশগুলোতে  কাজ করতে গেলে অনেক সময় তদবির লাগে। আইনি প্রক্রিয়ায় আমরা কীভাবে কাজ করতে পারি তা খতিয়ে দেখছি।’ 

২০১৬ সালে সরকার ও ২০১৮ সালে বিএনপির যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ করা নিয়ে প্রশ্ন করলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি অত সব জানিটানি না। আপনাদের মাধ্যমে এসব শুনিটুনি। যে যাই কিছু করতে চাক না কেন, আইনি প্রক্রিয়ায় সবার লবিস্ট নিয়োগের অধিকার রয়েছে। এর বিরুদ্ধে বলার কিছু নাই। বিএনপি করুক অন্য লোকজন করুক, এটা তাদের বিষয়, আমাদের নয়।’ 

আইনি প্রতিষ্ঠান বিলিয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশকে তুলে ধরা নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে আমাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে। কোনো নতুন আইন ছাড়া আদেশ দেওয়া হচ্ছে মাস্ক পরাসহ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা নিয়ে। এতে মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতায় বাধা আসছে। পুরো দুনিয়ায় যে নতুন ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে, সেটিকে কীভাবে আইনের মধ্যে আনা যায় এবং মানুষের অধিকার কীভাবে রক্ষা করা যায়, তাতে ভূমিকা রাখতে পারে বিলিয়া।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    শান্তিরক্ষা মিশন থেকে র‍্যাবকে বাদ দিতে ১২ মানবাধিকার সংগঠনের চিঠি

    ইউক্রেনে রাশিয়ান আগ্রাসন রুখতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা জারি রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

    বিশ্বে করোনায় এক দিনে শনাক্ত ৩০ লাখ, মৃত্যু ৮০৩৭

    যে কোনো সময় ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া: যুক্তরাষ্ট্র

    জন-আস্থায় পিছিয়ে পড়ছে গণতান্ত্রিক দেশগুলোর সরকার

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    ওমিক্রন নিয়ে সংশয়ের মূল বর্ণবাদ, দাবি দ. আফ্রিকান বিজ্ঞানীদের

    আ.লীগ লবিস্ট নিয়োগ করে জনগণের অর্থ ব্যয় করছে: খন্দকার মোশাররফ

    ভেড়ামারায় পানিতে ডুবে দেড় বছরের শিশুর মৃত্যু

    চট্টগ্রামে শুল্ক আত্মসাতের দায়ে কারাগারে দুই রাজস্ব কর্মকর্তা

    নিখোঁজের ২ দিন পর খাল থেকে শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার

    নান্দাইলে ট্রলি-অটোর সংঘর্ষে নিহত ১