Alexa
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

হঠাৎ ঝড়-শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:১০

জামালপুরের মাদারগঞ্জে গত বুধবার দিবাগত রাতের শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের খেত। ছবি: আজকের পত্রিকা জামালপুরের মাদারগঞ্জে শীতের রাতে হঠাৎ শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অসময়ে এই শিলাবৃষ্টির ফলে সরিষা, ভুট্টা, মরিচসহ বিভিন্ন ধরনের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত বুধবার দিবাগত রাতে এই ঝড় ও শিলাবৃষ্টি হয়।

অনেকে বলেছেন, এর আগে শীত মৌসুমে এত শিলাবৃষ্টি কখনো দেখেননি তারা। উপজেলা কৃষি অফিস বলছে, শিলাবৃষ্টিতে কি পরিমাণ ফসলের ক্ষতির হয়েছে তা নিরূপণ করা হচ্ছে।

জানা গেছে, গত বুধবার সন্ধ্যার পর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে শুরু হয় শিলা বৃষ্টি। প্রায় ১০-১৫ মিনিট ধরে চলা বৃষ্টিতে কোথাও কোথাও শিলার স্তূপ জমে বরফের মতো সাদা হয়ে যায়।

পৌষের এই শিলা বৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ঝড় ও শিলাবৃষ্টির আঘাতে মাটির সঙ্গে নুইয়ে পড়েছে উঠতি ফসল গম, ভুট্টা, মরিচসহ বিভিন্ন ফসল ও সবজি।

এ ছাড়া শিলা বৃষ্টিতে সদ্য গুটি আসা আম ও লিচুর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিলাবৃষ্টির ফলে ফসল ও ফলের মুখ দেখার আগেই মাথায় হাত পড়েছে কৃষকের।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে এই উপজেলায় ১ হাজার ৭৫ হেক্টর জমিতে ভুট্টা, ৩১০ হেক্টর জমিতে গম, ৯১০ হেক্টর জমিতে সরিষা, ১ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে মরিচ আবাদ করা হয়েছে।

এ ছাড়া পেঁয়াজ, রসুনসহ বিভিন্ন সবজি আবাদ করা হয়েছে। বালিজুড়ী ইউনিয়নের সুখনগরী দ্বিপচর এলাকার কৃষক জহুরুল টিপু জানান, তিনি ৪ একর জমিতে ভুট্টার চাষ করেছেন। গত বুধবার রাতের শিলাবৃষ্টিতে ৩ একর জমির ভুট্টার গাছ মাটিতে নুয়ে পড়ে নষ্ট হয়ে গেছে।

একই এলাকার কৃষক সুমন বলেন, এমন শিলাবৃষ্টি আগে কখনো দেখিনি আমি। এতে আমার ২ একর জমির ভুট্টা খেতের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আবুল হোসেন নামে এক মরিচ চাষি জানান, ব্যাপক শিলাবৃষ্টির ফলে তার এক একর জমির মরিচের খেত সবটুকু নষ্ট হয়ে গেছে।

আরেক কৃষক আলাল আকন্দ বলেন, মরিচ লাভজনক হওয়ায় প্রতিবছর চাষ করি। বুধবার রাতের শিলাবৃষ্টিতে আমার বিরাট ক্ষতি হয়ে গেল। আমার অনেক ফসল নষ্ট হয়ে গেল।

বুধবার রাতে শিলাবৃষ্টির পর ক্ষতিগ্রস্ত ফসলের খেত দেখতে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ফাতেমাতুজযোহরা সাথির নেতৃত্ব গতকাল একটি বিশেষ টিম ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শাহাদুল ইসলাম জানান, উপজেলার কিছু এলাকার ভুট্টার গাছ নুয়ে পড়েছে। কৃষকেরা যদি ভুট্টার গাছগুলো বেঁধে দেয়, তাহলে তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

অসময়ের এই বৃষ্টিতে ভুট্টা, মরিচ, পেঁয়াজ, সরিষা, গমসহ সবজির তেমন ক্ষতি হবে না। শিলাবৃষ্টিতে কি পরিমাণ ফসলের ক্ষয়ক্ষতির হয়েছে তা নিরূপণ করা হচ্ছে। আমাদের অফিসারগণ মাঠে থেকে কৃষকদের যেন সব ধরনের সহযোগিতা দেন, সে ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    সন্ত্রাস-নাশকতা বড় গুনাহের কাজ

    প্রশাসনের দিকে অভিযোগের তির নৌকার ১০ প্রার্থীর

    আইভীতেই আস্থা অটুট

    সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে ফসলের ক্ষতি

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    নীলফামারীতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, যুবক আটক

    আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিল শাবিপ্রবি প্রশাসন

    সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

    ‘আপনার সার্ভিসের আর প্রয়োজন নেই’, শিক্ষকদের অব্যাহতির চিঠি

    বিএসআরএম কারখানায় ৩ শ্রমিক বিদ্যুতায়িত