Alexa
শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

দেওয়ানগঞ্জে তিন দিনের জেলা ইজতেমা শুরু

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:১২

দেওয়ানগঞ্জে তাবলিগ জামাতের আয়োজনে জেলা ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা। ছবি: আজকের পত্রিকা জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে তাবলিগ জামাতের আয়োজনে তিন দিন ব্যাপী জেলা ইজতেমা শুরু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বাহাদুরাবাদ ইউনিয়নের পোল্যাকান্দি সেতুর নিচে ব্রহ্মপুত্র নদের পারে অনুষ্ঠিত এই ইজতেমার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন বাহাদুরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাকিরুজ্জামান রাখাল ও জামালপুর তাবলিগ জামাতের সুরা কমিটির নেতৃবৃন্দ।

ইজতেমা আয়োজন কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত ২১ ডিসেম্বর নিজাম উদ্দিন অনুসারী তাবলিগ জামাত কাকরাইল সুরা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক জামালপুর জেলার ইজতেমা দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় অনুষ্ঠিত হওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সেই মতে ১৩, ১৪ ও ১৫ জানুয়ারি এ ইজতেমা চলবে বলে জানান দায়িত্বশীল ব্যক্তিগণ।

ইজতেমা শুরুর ১ সপ্তাহ আগে থেকে শুরু হয় প্যান্ডেল, মঞ্চ, আলোকসজ্জাসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনার কাজ। কোনো প্রকার প্রচার ছাড়াই ইজতেমা অনুষ্ঠান আয়োজনের খবর জেলা উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

সরেজমিনে ইজতেমা মাঠে গিয়ে দেখা যায়, ইজতেমার প্রথম দিনেই ইজতেমা মাঠে হাজারো মানুষের ঢল। ইজতেমায় আগত মুসল্লিগণের তিন দিন থাকা খাওয়াসহ অজু-গোসল প্রস্রাব পায়খানার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করেছে ইজতেমা আয়োজক কমিটি।

ব্রহ্মপুত্র নদের দুই তীরে করা প্যান্ডেলে যাতায়াতের জন্য পানির ওপর মুসল্লিগণের পারাপারের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে অস্থায়ী বাঁশ ও কাঠের পাটাতনের মজবুত সেতু। আগত মুসল্লিগণ খাবার তৈরির জন্য বাসন-কোসন, চাল-ডালসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ এবং থাকার জন্য বিছানাপত্র নিজেদের দায়িত্বে এনেছেন। নিজেদের খাবার নিজেরাই রান্না করছেন। এদিকে ইজতেমাকে ঘিরে ইজতেমা প্রাঙ্গণে বসেছে বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে চল্লিশটি জামাত ইজতেমায় এসেছে বলে জানা যায়। জামাত বন্দী হওয়া ছাড়াও অনেকেই এসেছেন ইজতেমায়।

কাকরাইল মার্কাজ থেকে দেশবরেণ্য আলেম ওলামাগণ শুরু থেকে পর্যায়ক্রমে কোরআন ও হাদিসের আলোকে বয়ান করছেন। আলেম ওলামাগণের বয়ান ও হাজারো হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগণের আগমনে মুখরিত হয়ে উঠেছে ইজতেমা প্রাঙ্গণ।

জামালপুর তাবলিগ জামাত (নিজাম উদ্দিন অনুসারী) সুরা সদস্য ইন্জি লিয়াকত আলী বলেন, প্রশাসনের সহায়তায় ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে। সাদ সাহেবকে বিশ্ব আমির মেনে প্রথম দিনই ইজতেমায় আশানুরূপ মুসল্লিদের আগমন ঘটেছে। আখেরি মোনাজাত পর্যন্ত মুসল্লিদের সংখ্যা বর্তমানের দ্বিগুণ হবে বলে আশা করছি। আগামী শুক্রবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে এই ইজতেমার সমাপ্তি হবে বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুন্নাহার শেফা জানান, পোল্যাকান্দি ব্রহ্মপুত্রের তীরে অনুষ্ঠিত জেলা ইজতেমাটি অনুষ্ঠিত হওয়ায় এ অঞ্চলে ধর্মীয় অনুভূতি জাগ্রত হয়েছে। ইতিমধ্যে আমি ইজতেমা মাঠ পরিদর্শন করেছি। সাধারণ মানুষ উৎসাহ ভরে ইজতেমায় অংশগ্রহণ করছেন। তিনি এ সময় ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানান।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল ওসি মুহাম্মদ মহব্বত কবির জানান, ইস্তেমায় কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা যেনো না হয় তার জন্য তৎপর রয়েছে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    এগারো বছরেও শেষ হয়নি খুলনা-মোংলা রেললাইনের কাজ

    তিন বছরেও নিজস্ব ভবন হয়নি শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের

    রাকিবুলদের বাঁচা মরার লড়াই

    নতুন ধারাবাহিক ‘ভাড়াবাড়ি বাড়াবাড়ি’

    ময়মনসিংহে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ আসামি গ্রেপ্তার

    সপরিবারে উচ্ছেদ করতে বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

    নানার মৃত্যুর খবরেও অনশনে অনড় মরিয়ম

    ভিয়েতনামের ‘মননশীলতার পিতা’ হ্যন আর নেই

    রামেকে করোনা উপসর্গে দুজনের মৃত্যু