Alexa
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

ভূমিসংক্রান্ত জটিলতা

৪ বছর আটকে রয়েছে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের নির্মাণকাজ

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০:০১

২০১৭ সালে মহালছড়িতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন করেন সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। ছবি: আজকের পত্রিকা খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে ২০১৭ সালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। তবে ভূমিসংক্রান্ত জটিলতার কারণে ৪ বছর আটকে রয়েছে নির্মাণকাজ।

সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে গণপূর্ত বিভাগ মহালছড়িতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করে। এর ভিত্তিতে স্থানীয় সাংসদ ও উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা মহালছড়ি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন করেছিলেন।

তবে এর কিছুদিন পর যেখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়, সেই জমিটি আক্তারউল আলম নামের এক ব্যক্তি ক্রয়সূত্রে মালিক হিসেবে দাবি করেন। এ বিষয়ে তিনি হাইকোর্টে রিট করেন। হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের কারণে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের নির্মাণকাজ বন্ধ হয়ে যায়।

মহালছড়িতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন উপজেলাবাসী। তাঁরা দ্রুত বিষয়টি সমাধানের দাবি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে মহালছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রতন কুমাল শীল বলেন, আক্তারউল আলমের কাছে জমির কোনো বৈধ কাগজপত্র নেই। তারপরও তিনি জমিটির মালিকানা দাবি করছেন। ওটি ফ্রিজল্যান্ডের সরকারি জায়গা। আক্তারউল আলমের নামে কোনো স্থায়ী বাসিন্দার সনদও নেই। ভূমি অফিসের রেজিস্ট্রারে তাঁর কোনো নামও নেই।

আক্তারউল আলমের কাছে জমির বৈধ কোনো কাগজ আছে কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মহালছড়ির কুমিল্লা টিলা এলাকায় ফ্রিজল্যান্ডের জায়গা আঞ্চলিক দলিল মূলে কয়েক দাগে চৌদ্দ একরের মতো জমি স্থানীয়দের থেকে ক্রয় করেছি।’

মহালছড়ি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও মহালছড়ি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মাণ মহালছড়িবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি। মহালছড়ি বাজারে প্রতিবছরই কোনো না কোনোভাবে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বাজারের ব্যবসায়ী ও সাধারণ জনগণ। আমরা দ্রুত ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের দাবি জানাচ্ছি।’

এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক দিদারুল আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। বদলিজনিত কারণে তিনি এখন খাগড়াছড়ির বাইরে আছেন বলে জানান।

মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোবাইদা আক্তার আজকের পত্রিকাকে বলেন, মামলাজনিত কারণে নির্মাণকাজ স্থগিত রয়েছে। কোর্ট থেকে নির্দেশনা আসলে কাজ শুরু করা হবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    সন্ত্রাস-নাশকতা বড় গুনাহের কাজ

    প্রশাসনের দিকে অভিযোগের তির নৌকার ১০ প্রার্থীর

    আইভীতেই আস্থা অটুট

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    নীলফামারীতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, যুবক আটক

    আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিল শাবিপ্রবি প্রশাসন

    সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

    ‘আপনার সার্ভিসের আর প্রয়োজন নেই’, শিক্ষকদের অব্যাহতির চিঠি

    বিএসআরএম কারখানায় ৩ শ্রমিক বিদ্যুতায়িত