Alexa
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

রাজস্ব আছে, উন্নয়ন নেই

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৩৪

রাজস্ব আছে, উন্নয়ন নেই ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার বাজারগুলোতে অবকাঠামোগত উন্নয়নে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না স্থানীয় প্রশাসন। প্রতি বছর হাট ইজারা দিয়ে সরকার বিপুল অর্থ আয় করছে। অথচ বাজারের সামগ্রিক উন্নয়নে পরিকল্পিতভাবে কাজ করা হচ্ছে না।

ইজারা নীতিমালা অনুযায়ী বার্ষিক আয়ের ১৫ শতাংশ হাট-বাজারের সার্বিক উন্নয়নে খরচ করার কথা থাকলে তা করা হয় না বলে দাবি স্থানীয়দের।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার স্থানীয় বাজারগুলোতে নেই কোনো গণশৌচাগার। এতে দোকানিদের পাশাপাশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদের। বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন, জনবহুল বাজারগুলোতে সরকারি উদ্যোগে গণশৌচাগার নির্মাণের ব্যবস্থা করা হোক। তবে জমির সংকটের কারণে বাজারগুলোতে গণশৌচাগার করা সম্ভব হচ্ছে না।

জানা গেছে, উপজেলায় লক্ষাধিক মানুষের বাস। উপজেলার চাঁদপুর শশীগঞ্জ, চরমোজাম্মেল দুলাল, চাঁদপুর গুরিন্দা, শম্ভুপুর ফকিরহাট, শিবপুর খাসেরহাট, শম্ভপুর ইয়াছিনগঞ্জ, চাঁদপুর ডাওরী হাট, শম্ভুপুর খাসেরহাট, শম্ভুপুর বউবাজারের মতো গুরুত্বপূর্ণ বাজার। এই বাজারগুলো থেকে প্রতিবছর প্রায় অর্ধকোটি টাকার রাজস্ব আয় করে সরকার। তবে উপজেলার হাট-বাজারগুলোতে নেই কোনো গণশৌচাগার। এতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় ব্যবসায়ী থেকে সাধারণ ক্রেতাদের।

উপজেলা পরিষদ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সপ্তাহের প্রতিদিনই কোনো না কোনো বাজারে হাট বসে। বাজারগুলোতে বিভিন্ন প্রয়োজনে আসে হাজারো পুরুষ, নারী ও শিশু। ইজারার মাধ্যমে রাজস্ব আদায় করা হলেও ক্রেতাদের জন্য নির্মাণ করা হয়নি কোনো গণশৌচাগার।

শশীগঞ্জ বাজারে মালামাল কিনতে আসা মো. শরীফ বলেন, ‘প্রতিদিনই বাজারে আসতে হয়। কিন্তু প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়।’

শশীগঞ্জ বাজারে ব্যবসায়ী শংকর শীল বলেন, ‘দীর্ঘদিন বাজারে ব্যবসা করি। কিন্তু কোনো টয়লেট না থাকায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে অনেক সমস্যায় পড়তে হয়।’

শিবপুর খাসেরহাট বাজার সমিতির সভাপতি মো. সাইদুজ্জামান বলেন, ‘শিবপুর খাসেরহাট অত্যন্ত জনবহুল বাজার। এই বাজারে থেকে সরকার বছরে অনেক টাকা রাজস্ব পায়। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, বাজারটিতে কোনো পাবলিক টয়লেট নাই।’

শম্ভুপুর খাসেরহাট বাজারের ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. বাচ্চু বলেন, ‘বাজারে কোনো গণশৌচাগার নেই। বাজারে গণশৌচাগার খুবই প্রয়োজন।’

শশীগঞ্জ দক্ষিণ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. মহিউদ্দিন তালুকদার বলেন, ‘একজন মানুষ ২ ঘণ্টা না খেয়ে থাকতে পারে। কিন্তু প্রকৃতির ডাকে সাড়া না দিয়ে পারে না। তাই তজুমদ্দিন উপজেলার বড় বড় বাজারে গণশৌচাগার অবশ্যই প্রয়োজন।’

গণশৌচাগার না থাকার ক্ষতিকর দিকের কথা তুলে ধরে তজুমদ্দিন হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট ডা. আফতাব উদ্দিন খান বলেন, ‘বাজারগুলোতে গণশৌচাগার খুবই দরকার। শৌচাগার না থাকায় অনেকে বাধ্য হয়ে যত্রতত্র মলত্যাগ করে, যা পানিবাহিত রোগ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখে। তজুমদ্দিনে দীর্ঘদিন জ্বর, টাইফয়েড, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত যে পরিমাণ রোগী দেখেছি তা বরিশালে পাইনি। তবে পর্যাপ্ত গণশৌচাগারের ব্যবস্থা করা গেলে ৭০ শতাংশ পানিবাহিত রোগ কমে যাবে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মরিয়ম বেগম বলেন, ‘ইজারার টাকা থেকে বাজার উন্নয়নের বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে, কিন্তু করোনার জন্য কাজ করা যায়নি। সামনে আলোচনা করে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তবে জমির সংকট থাকায় অধিকাংশ বাজারে গণশৌচাগার করা যাচ্ছে না। জমি পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    দোয়া সফলতার হাতিয়ার

    শ্রীবরদীতে সারের কৃত্রিম সংকট, বেশি দামে বিক্রি

    ফ্যাশনেবল ফিউশন

    নিরাপদ অভিবাসন নিয়ে কর্মশালা

    ঘাটাইলে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৩ অবৈধ ইটভাটা

    ওমিক্রন নিয়ে সংশয়ের মূল বর্ণবাদ, দাবি দ. আফ্রিকান বিজ্ঞানীদের

    আ.লীগ লবিস্ট নিয়োগ করে জনগণের অর্থ ব্যয় করছে: খন্দকার মোশাররফ

    ভেড়ামারায় পানিতে ডুবে দেড় বছরের শিশুর মৃত্যু

    চট্টগ্রামে শুল্ক আত্মসাতের দায়ে কারাগারে দুই রাজস্ব কর্মকর্তা

    নিখোঁজের ২ দিন পর খাল থেকে শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার

    নান্দাইলে ট্রলি-অটোর সংঘর্ষে নিহত ১