Alexa
শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

বাগানে সাথি ফল বরই

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১১:০১

নিজ বাগানে বরইচাষি আবদুল মতিন। পুঠিয়া উপজেলার পীরগাছা এলাকা থেকে সম্প্রতি তোলা ছবি। আজকের পত্রিকা বরই চাষে খরচ বেশি হলেও বাগানে সাথি ফল হিসেবে এর কদর বেশ। নতুন কোনো ফলের বাগান করলে জমির বেশির ভাগ অংশ ফাঁকা পড়ে থাকে। তাই প্রথম বছর ওই ফাঁকা স্থানটি বরই চাষ করতে বেছে নিয়েছেন পুঠিয়ার কৃষকেরা। তাঁদের দেখাদেখি ভবিষ্যতে সাথি ফল হিসেবে বরই চাষে আগ্রহী হচ্ছেন আরও অনেকে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর উপজেলার মোট ৩৫ হেক্টর জমিতে বরই চাষ করা হয়েছে। এর মধ্যে বলসুন্দরী, বাউকুল, আপেল কুল ও কাশ্মীরি বরই বেশি চাষ হয়েছে।

পীরগাছা এলাকার বরইচাষি আবদুল মতিন বলেন, আমবাগানের মধ্যে প্রায় এক বিঘা জমিতে বলসুন্দরী জাতের বরইয়ের চাষ করেছেন তিনি। বাজারে এই জাতের বরইয়ের চাহিদা বেশ। দামও মোটামুটি ভালো পাওয়া যায়। তিনি বলেন, তাঁর বাগান দেখতে স্থানীয় অনেক কৃষক আসছেন। তাঁরা ভবিষ্যতে বরই চাষ করতে চাচ্ছেন।

গোপালহাটি গ্রামের বরই চাষি মাসুদ রানা বলেন, এক বিঘা জমিতে বরই চাষ করতে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা খরচ হয়। জাত ও মান ভালো হলে বরইয়ে প্রতি বিঘায় ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা আয় করা সম্ভব।

কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, বাজারে ভালো জাতের বরই আসতে এখনো এক মাসের মতো লাগবে। বর্তমানে বাজারে যেসব বরই আসছে সেগুলো কেজিপ্রতি প্রকারভেদে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া বরইয়ের বাগান প্রতিবছর নতুন করে রোপণ করাই ভালো। একই গাছে দুই বা তিনবার বরই নিতে গেলে সাইজে ছোট ও মান খারাপ হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামসুন্নাহার ভূঁইয়া বলেন, ‘আমাদের এলাকার চাষিরা বর্তমানে সাথি ফসল হিসেবে বরই চাষ করছেন। অনেকে নতুন রোপণ করা আম, মাল্টা, ড্রাগন ও পেয়ারাবাগানগুলোতে বরই চাষ বেশি করছেন।’ কারণ হিসেবে তিনি বলেন, নতুন কোনো ফলের বাগান করলে জমির বেশির ভাগ অংশ পড়ে থাকে। তাই প্রথম বছর ওই ফাঁকা স্থানটিতে চাষিরা বরই চাষ করছেন। এতে করে ফল বাগানে চাষিরা লাভ বেশি পাচ্ছেন। এবার আবহাওয়া অনেক ভালো। তাই বরইয়ের বাগানগুলোতে ভালো ফলন হবে বলে আশা করছেন তিনি।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    এগারো বছরেও শেষ হয়নি খুলনা-মোংলা রেললাইনের কাজ

    তিন বছরেও নিজস্ব ভবন হয়নি শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের

    রাকিবুলদের বাঁচা মরার লড়াই

    নতুন ধারাবাহিক ‘ভাড়াবাড়ি বাড়াবাড়ি’

    সিরিজটি আমাদের জন্য একটা স্কুলিং ছিল

    আবারও টালিউডে মোশাররফ

    ভিয়েতনামের ‘মননশীলতার পিতা’ হ্যন আর নেই

    রামেকে করোনা উপসর্গে দুজনের মৃত্যু

    আইপিএলের নিলামে সাকিব-মোস্তাফিজের ভিত্তিমূল্য ২ কোটি রুপি