Alexa
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

ডিএমপির অভিযান

কারও মাস্ক থুতনিতে কেউ রেখেছেন পকেটে

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৪৬

বিধিনিষেধের প্রথম দিন মাস্ক না পরায় ১১ জনকে জরিমানা করা হয়। মাস্ক পরিধান না করায় অনেকে আবার ক্ষমা চেয়ে রেহাই পান ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাত থেকে। গতকাল শাহবাগের অভিযানে। ছবি: আজকের পত্রিকা  করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন মোকাবিলায় সরকারের দেওয়া ১১ বিধিনিষেধ গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে কার্যকর হয়েছে। বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে সকাল থেকে মাঠে ছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি), ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে পরিচালিত প্রথম দিনের অভিযানে মামলা, জরিমানা ও মাস্ক পরিধানে সতর্কতা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মানতে মাইকিং করতে দেখা যায় থানা-পুলিশের সদস্যদের।

রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে প্রায় দুই ঘণ্টার এক অভিযানে বিভিন্ন পরিবহন ও পথচারীদের মাস্ক পরতে সচেতনতা তৈরি করা হয়। পাশাপাশি যাঁরা মাস্ক ছাড়া বাসা থেকে বের হয়েছেন, তাঁদের জরিমানা ও সতর্কতা করা হয়। প্রথম দিনের শাহবাগের অভিযানে মাস্ক না পরায় ১১টি মামলা দেওয়া হয়েছে। ১১ মামলার বিপরীতে ২ হাজার ৫৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

অভিযানের বিষয়ে ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জিব দাস বলেন, ‘সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে আমরা কাজ করছি। মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হওয়ার কারণে ১১ জনের বিরুদ্ধে সংক্রামক আইনে মামলা করা হয়েছে। তাঁদের কাছ থেকে টাকা আদায় করা হয়েছে। তা ছাড়া, আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করেছি। তবে বেশির ভাগ মানুষের সঙ্গে মাস্ক থাকলেও সেগুলো ছিল থুতনিতে, কেউ রেখেছেন পকেটে।’

এদিকে গত বুধবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা ১১ দফা নির্দেশনার প্রথমটিতে বলা হয়, দোকান, শপিংমল ও বাজারে ক্রেতা-বিক্রেতা এবং হোটেল-রেস্তোরাঁসহ সব জনসমাগমস্থলে বাধ্যতামূলকভাবে সবাইকে মাস্ক পরিধান করতে হবে। অন্যথায় তাঁকে আইনানুগ শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে। এরই ধারাবাহিকতায় সাধারণ মানুষকে বিধিনিষেধ মানাতে কাজ করছে পুলিশ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

স্বাস্থ্যবিধি মানাতে পুলিশের মাইকিং অভিযান: দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে নতুন করে জারি করা বিধিনিষেধের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার রাজধানীতে ঢিলেঢালা ভাব দেখা গেছে। তবে মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাইকিং করতে দেখা যায় থানা-পুলিশের সদস্যদের। ঢাকা মহানগর পুলিশের একাধিক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, প্রথম দিন সফট অ্যাপ্রোচের (নমনীয় অবস্থান) মাধ্যমে বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের চেষ্টা করা হয়েছে। তাতে কাজ না হলে আইন প্রয়োগ করা হবে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজধানীর বাড্ডা, রামপুরা, বনশ্রী, মগবাজার, শাহবাগ, সেগুনবাগিচা এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সাধারণ মানুষ গত কয়েক দিনের তুলনায় বেশি মাস্ক পরেছেন। তবে বেশির ভাগই মাস্ক পরেননি।

ডিএমপি জানিয়েছে, প্রতিটি থানায় নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি একটি করে টিম স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কাজ করছে। তাদের সঙ্গে দুজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও মাঠে থাকবেন।

ডিএমপির ওয়ারী বিভাগের উপকমিশনার শাহ ইফতেখার আহমেদ জানান, বাজার বা শপিংমলে সবাই যাতে মাস্ক পরে, তা নিশ্চিতে প্রতিটি থানাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আগত ক্রেতাদের সচেতন করার পাশাপাশি মার্কেট কমিটি যাতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কাজ করে, সে বিষয়েও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইফতেখার বলেন, ‘আমরা থানায় আগত সকলকে মাস্ক পরা, স্যানিটাইজ করা এবং সোশ্যাল ডিসট্যান্স (শারীরিক দূরত্ব) মেনে চলার ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। সচেতনতা বৃদ্ধিতে মাইকিং করা হচ্ছে। মার্কেট, বাজার কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছি আমরা। তারাও যেন ভেতরে জীবাণুমুক্তকরণের ব্যবস্থা রাখে এবং নিজেরাও যাতে তদারকি করে, সে ব্যাপারে ভালো করে বলে দেওয়া হয়েছে সবাইকে।’

ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার ফারুক হোসেন বলেন, ‘আমাদের প্রতিটি থানা সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করছে। নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি একটি টিম থানা এলাকায় স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে টহল দিচ্ছে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    সন্ত্রাস-নাশকতা বড় গুনাহের কাজ

    প্রশাসনের দিকে অভিযোগের তির নৌকার ১০ প্রার্থীর

    আইভীতেই আস্থা অটুট

    সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে ফসলের ক্ষতি

    অভিনয়শিল্পী শিমুর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    নীলফামারীতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, যুবক আটক

    আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিল শাবিপ্রবি প্রশাসন

    সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

    ‘আপনার সার্ভিসের আর প্রয়োজন নেই’, শিক্ষকদের অব্যাহতির চিঠি