Alexa
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সেকশন

epaper
 

মিয়ানমারের বিষয়ে সম্মিলিত পদক্ষেপ চায় জাতিসংঘ

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ০১:১৪

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর দমন-পীড়নে যারা মারা যাচ্ছেন তাদের অধিকাংশই তরুণ। সেনা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে তাই এক হয়েছেন বামার, কারেন বা কাচিনের মতো জনগোষ্ঠীর তরুণ-তরুণীরা। জান্তাবিরোধী প্রতিরোধ ছড়িয়ে পড়েছে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও। গত বছর ইয়াঙ্গুন থেকে তোলা। ছবি: রয়টার্স গত ফেব্রুয়ারির সামরিক অভ্যুত্থানের পর মিয়ানমারের আর্থসামাজিক, রাজনৈতিক অবস্থা ক্রমশ খারাপ হয়েছে। এ অবস্থায় দেশটির সংকট সমাধানে আন্তর্জাতিক মহলের প্রচেষ্টাকে সহযোগিতা করতে  আসিয়ানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

সংস্থাটির মিয়ানমারবিষয়ক বিশেষ দূত নোলিন হাইজার আসিয়ানের নতুন চেয়ার কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের সঙ্গে গতকাল ভিডিও আলাপ করেছেন। হাইজার সেনকে বলেন, ‘মিয়ানমারে মানবিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আমাদের সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। দেশটির সংকট সমাধানে আসিয়ানের দেওয়া পাঁচ দফা বাস্তবায়নের জন্যও এটা দরকার।’ 
 ১০ সদস্যের আসিয়ানের সদ্য সাবেক চেয়ার ব্রুনাইয়ের নেতৃত্বে গত বছর মিয়ানমার-সংকট সমাধানে ওই পাঁচ দফা দেওয়া হয়। দফার অংশ হিসেবে দেশটির মিয়ানমারবিষয়ক বিশেষ দূত দেশটি সফর করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করতে চাওয়ায় তাঁর আগমন অনুমোদন করেনি জান্তা সরকার। প্রতিক্রিয়ায় গত বছরের শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমারের জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লাইংকে আমন্ত্রণ না জানানোর সিদ্ধান্ত নেয় আসিয়ান।

এর মধ্যেই গত ৭ জানুয়ারি  দুই দিনের সফরে মিয়ানমারে আসেন কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন। জান্তার ক্ষমতা গ্রহণের পর দেশটিতে কোনো সরকারপ্রধানের এটাই প্রথম সফর।

সেনের সফর জান্তার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির পথ সুগম করবে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো। হুন সেনের সফরে বিক্ষোভ করেছেন জান্তাবিরোধীরাও।

কম্বোডিয়ার মিয়ানমারবিষয়ক বিশেষ দূত প্রাক সোখোন আসিয়ানের আগের কৌশল ফলপ্রসূ নয় বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন। কিন্তু সংকট সমাধানে সব  পক্ষকে আলোচনার উদ্যোগ নিতে সোখোনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন হাইজার।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় বাইডেন প্রশাসন

    আবুধাবিতে ড্রোন হামলায় নিহত ৩

    সরকারি তহবিল বন্ধের উদ্যোগে বিপাকে পড়তে যাচ্ছে বিবিসি

    ধর্ম অবমাননা মামলাতেও রিমান্ডে নরসিংহানন্দ

    চীনের নজর মধ্যপ্রাচ্যে বড় চ্যালেঞ্জ যুক্তরাষ্ট্র

    নীলফামারীতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, যুবক আটক

    আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিল শাবিপ্রবি প্রশাসন

    সৌদি আরবে পাওয়া গেল ৪৫০০ বছর আগের মহাসড়ক

    ‘আপনার সার্ভিসের আর প্রয়োজন নেই’, শিক্ষকদের অব্যাহতির চিঠি

    বিএসআরএম কারখানায় ৩ শ্রমিক বিদ্যুতায়িত