Alexa
মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২

সেকশন

epaper
 

মহামারিতে পথে নেমেছে ১০ কোটি মানুষ, কাটেনি শঙ্কা

আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৩৫

দক্ষিণ আফ্রিকার একটি গ্রামে খাবারের জন্য মানুষের দীর্ঘ লাইন। ছবি: রয়টার্স জীবিকার তাগিদে গ্রাম ছেড়ে শহরে পাড়ি জমিয়েছিলেন অনুন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশের অনেকেই। প্রতিদিন সংগ্রাম করে টিকে থেকেছেন। কিন্তু তাঁদের টিকে থাকার সেই লড়াইটা কঠিন করে দিয়েছে করোনা মহামারি। বেকার হয়েছেন লাখো মানুষ, কাটেনি জীবন নিয়ে অনিশ্চয়তাও।

বিশ্ব ব্যাংকের তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, মহামারিতে নতুন করে দরিদ্র হয়েছেন বিশ্বের প্রায় ১০ কোটি মানুষ। তাঁদের দৈনিক আয় দুই ডলারেরও কম। গত দুই দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো দেখা গেছে দুর্দশার এমন চিত্র।

তবে মহামারি ধনীদের তেমন একটা স্পর্শ করতে পারেনি। করোনাকালে আরও সম্পদের মালিক হয়েছেন তাঁরা। ওয়ার্ল্ড ইনেকুইলিটি ল্যাব বলছে, মহামারির বছর সবচেয়ে বেশি সম্পদ বেড়েছে ধনীদের। করোনা প্রাদুর্ভাবের মাত্র ৯ মাসের মধ্যেই নিজেদের ‘শঙ্কায় থাকা ভাগ্য’ ফেরাতে পেরেছেন অন্তত ১ হাজার ধনী। অক্সফামের বার্ষিক আন্তর্জাতিক প্রতিবেদন বলছে, মহামারির প্রথম দিকে ধনীদের যে ক্ষতি হয়েছে, তা পূরণ করতে এক দশক লেগে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তা হয়নি।

সিএনএনের বিশ্লেষক বেকি অ্যান্ডারসন ও ডেভিড বেসলি বলেন, ইলন মাস্কের সম্পদের মাত্র ২ শতাংশ দিয়ে বিশ্বের ক্ষুধামান্দ্য দূর করা সম্ভব। আর বিশ্বের তিন ধনী ব্যক্তির সম্পদ দিয়ে বিশ্বব্যাপী দরিদ্রের সংখ্যা কমিয়ে আনা সম্ভব। তবে টিকাবৈষম্য আগে দূর করা উচিত বলে মনে করছেন কয়েকজন বিশ্লেষক। এরপর অর্থনীতি ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    পণ্য নিয়ে জাহাজ আটকা

    যমুনায় বাড়ছে পানি, তলিয়ে যাচ্ছে নিম্নাঞ্চলের ফসলি জমি

    শত মিটারের যত ভোগান্তি

    দোকানে দখল আশ্রয়ণের জমি

    বৃদ্ধকে শিকলে বেঁধে ঘরবন্দী, গ্রেপ্তার ২

    বোরো ধানে লোকসানের শঙ্কা

    ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব পড়েছে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামেও 

    এডিস নিয়ন্ত্রণে দক্ষিণ সিটিতে ১৫ জুন থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত