গণপিটুনির শিকার নারী।

গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা ও কালিয়াকৈরের লতিপপুর এলাকা থেকে ছেলে ধরা সন্দেহে এক নারী সহ দুইজনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

গুরুতর আহত ওই নারীকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপরজন কালিয়াকৈর থানা হেফাজতে রয়েছে । পুলিশ জানান,গণপিটুনির শিকার দুইজনই মানসিক ভারসাম্যহীন।

আহত নারীর নাম মমতাজ খাতুন। তিনি নেত্রকোনার দুর্গাপুর এলাকার আবদুল আলীমের স্ত্রী।

বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে এম কাউসার জানান, আজ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় রাস্তায় ওই নারীকে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয়রা তাকে আটক করে।

ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে মমতাজ খাতুন কে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অপরদিকে কালিয়াকৈরর লতিফপুর থেকে আটক হওয়া ব্যক্তিটি কালিয়াকৈর থানায় পুলিশের হেফাজতে রয়েছে ।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, গণপিটুনির শিকার ওই নারীর শরীরে নীলা ফুলা জখম রয়েছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত।

মো.শহিদুল ইসলাম/গাজীপুর