আনারস বিক্রির ধুম

খানসামা উপজেলায় চলছে বৃষ্টি বাদল ও মাঝে মধ্যে হচ্ছে ভ্যাপসা গরমসহ রোদবৃষ্টি। এ সময় বের হয়েছে খানসামার বিভিন্ন হাটবাজারে মধুপুরি আনারস। উপজেলার পাকেরহাটে সকাল ১০টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত আনারসের দোকানে ক্রেতার ভীড় লক্ষ্য করা যায়।

এসময় বিভিন্ন ফলের মওসুম না হওয়ায় মধুপুরি আনারস বিক্রির যেন ধুম পড়েছে। পাকেরহাটের শাপলা চত্বরে ফুট পাতে বিক্রি হচ্ছে মধুপুরি আনারস। পাকেরহাটে এমনই ফুটপাতে আনারস দোকানে ক্রেতাদের ভীড়ে এমন এক ক্রেতা জানালেন এখন কোনো মওসুমী ফল না থাকার কারণে অনেকেই আনারস কিনছেন। এখন ভাইরাস জ্বর হচ্ছে।

আনারস খেলে নাকি এ ভাইরাস জ্বর হয় না। সে জন্য আমি এক জোড়া আনারস কিনলাম। ফলের চাহিদা মেটাতে খানসামা উপজেলায় কমলা,আপেল, সৌদি খেজুর,আম, থাকলেও এর চাহিদা মধুপুরি আনারসের চেয়ে অনেক কম। এ ভ্যাপসা গরমে আনারস জনপ্রিয় ফলের তালিকায় স্থান পেয়েছে।

খানসামা উপজেলার মধুপুরি আনারস দোকানের মালিক সাইফুল জানায় আজকে পাকের বাজারের দিন। তবে পাকের হাটের দিন মিনিমাম হাজার পনের ”শ” আনারস বিক্রি হয়। এ সময় মধুপুরি আনারসের চাহিদা আছে।

তারিকুল ইসলাম চৌধুরী/খানসামা