গেজেট প্রকাশের পাঁচ মাস পর ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। ৫ মে দেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন ময়মনসিংহ সিটির প্রথম ভোট। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ৪৬তম সভায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সিইসি নবগঠিত এ সিটি করপোরেশনের ভোটের তফসিল ঘোষণা করেন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মেয়র ও কাউন্সিলর পদে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নত্র জমার শেষ সময় ৮ এপ্রিল; মনোনয়নপত্র বাছাই ১০ এপ্রিল, প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ এপ্রিল এবং ভোট হবে ৫ মে।

নির্বাচন উপলক্ষ্যে এ বছরের ২৮ জানুয়ারি ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনকে ৩৩টি সাধারণ এবং ১১টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ভাগ করে সীমানা সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করা হয়।

স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন অনুযায়ী প্রশাসকের মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ ১৮০ দিন। প্রশাসকের মেয়াদ শেষের আগেই নতুন জনপ্রতিনিধির জন্যে ভোট হতে যাচ্ছে এ সিটির।

ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে বয়ড়া ও আকুয়া ইউনিয়নের সম্পূর্ণ এবং খাগডহর, চরঈশ্বরদিয়া, দাপুনিয়া, ভাবখালী, সিরতা ও চরনিলক্ষীয়া ইউনিয়নের আংশিক এলাকাকে ময়মনসিংহ পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত করে এই সিটি করপোরেশনের এলাকা নির্ধারণ করা হয়।

২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোনা জেলা নিয়ে দেশের অষ্টম বিভাগ হিসেবে ময়মনসিংহের প্রস্তাব অনুমোদন দেয় নিকার। এর তিন বছরের মাথায় ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনও ঘোষণা করা হয়। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ, রংপুর, গাজীপুরের পর দেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন হিসেবে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন গঠন করে সরকার।

প্রসঙ্গত, নতুন এই সিটি করপোরেশনের আয়তন ৯১ দশমিক ৩১৫ বর্গকিলোমিটার। এই সিটি করপোরেশনের মোট জনসংখ্যা ৪ লাখ ৭১ হাজার ৮৫৮ জন। পরে নবগঠিত এ সিটির প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পান বিলুপ্ত ময়মনসিংহ পৌরসভার সাবেক মেয়র ইকরামুল হক।

২০১৮ সালের ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহকে বাংলাদেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন গঠনের গেজেট প্রকাশ করে সরকার। ২ এপ্রিল প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) সভায় নতুন এই সিটি করপোরেশন গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব/