বিক্রি নিষিদ্ধ ৫২টি পণ্য। ছবি : সংগৃহীত

উচ্চ আদেশের পর নিজেদের মানহীন ৫২টি পণ্য বাজার থেকে সরিয়ে নিতে পণ্যের মালিকানা প্রতিষ্ঠানগুলোকে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। এছাড়া দেশের জাতীয় দৈনিক পত্রিকাগুলোতেও গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১২ মে ৫২টি মানহীন খাদ্য পণ্য বাজার থেকে সরিয়ে নিতে আদেশ দেন উচ্চ আদালত। একই সঙ্গে ওই খাদ্যপণ্য বিক্রি ও সরবরাহে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দেন আদালত। এরপরই বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ নিষিদ্ধ পণ্যগুলো বাজার থেকে সরিয়ে নিতে প্রতিষ্ঠানগুলোকে চিঠি দেয়।

তবে এই মানহীন পণ্যগুলো এখনও বাজার থেকে না সরায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ ক্রেতারা। ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছেন অনেকে।

এদিকে বিক্রি নিষিদ্ধ ৫২টি পণ্যের আবার মান উন্নয়ন করা হয়েছে দাবি করে বিএসটিআই’র কাছে চিঠি দিয়েছে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। বিএসটিআই বলছে, মান উন্নয়ন করা ওই পণ্যগুলো আবারো ল্যাবে পরীক্ষা নিরিক্ষা করেই পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিএসটিআই’র এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা পর্যবেক্ষণে বসছি এই ব্যাপারে শিগগিরই একটা ব্যবস্থা নিবো। যদি কোনো প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্যে গুণগত মান বাংলাদেশে মানের সাথে উন্নয়ন করতে পারে, তাহলে তাদের বাজারজাত করার অনুমতি দেয়া হবে। তবে এই মধ্যবর্তী সময়ে পণ্যগুলো বাজার থেকে প্রত্যাহার করে নিতে হবে।’ তবে আবারো পণ্য পরীক্ষা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছে বিএসটিআইএ।

বিএসটিআইএ’র এক কর্মকর্তা বলেন, এখন পরীক্ষা করে দেখবো যে তারা মান উন্নয়ন করেছে কিনা, যদি পণ্যে গুণগত মান উন্নয়নের প্রমাণ দেখতে পাই। তাহলে আমরা এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নিবো।

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব