সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: পিআইডি

স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং পঁচাত্তর পরবর্তী আওয়ামী লীগকে সংগঠিত রাখার ক্ষেত্রে কত মানুষের যে ভূমিকা ছিলো তা বলে শেষ করা যাবে না। রুশেমা বেগম ছিলেন তাদের অন্যতম। এই নির্যাতিত নেতাকর্মীরা যাতে মূল্যায়িত হয়, একটু স্বস্তি পায় আমি সে চেষ্টা-ই করি।

সদ্য প্রয়াত সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) রুশেমা বেগমের শোক প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে বুধবার (১০ জুলাই) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

এর আগে অধিবেশনের সভাপতি স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী প্রয়াত এমপি রুশেমা বেগমের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন। পরে সর্বস্মতিক্রমে শোক প্রস্তাবটি সংসদে গৃহীত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। একই সময়ের মধ্যে দেশের শাসনব্যবস্থা বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে। তখন সরকারি ব্যয়ের সিংহভাগ বাস্তবায়িত হবে স্থানীয় পর্যায়ে। বুধবার বিকেলে জাতীয় সংসদে লিখিত প্রশ্নোত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদের অধিবেশন বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত মুলতবি করা হয়। সংসদের রীতি অনুযায়ী, চলমান সংসদের কোনো সদস্যের মৃত্যু হলে তার উপর আলোচনার পর ওই দিনের জন্য অধিবেশন মুলতবি করা হয়ে থাকে।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস