এখন থেকে পাসপোর্ট ও সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে পুলিশ ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হলে তা আবেদনকারীর মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। এই ব্যবস্থা চট্টগ্রাম মহানগরীতে এক মাস আগে চালু হলেও ঢাকা রেঞ্জের ১৩টি জেলায় ১ ডিসেম্বর চালু হচ্ছে।

পাসপোর্টের জন্য পুলিশ ভেরিফিকেশন নিয়ে হয়রানির অভিযোগ অনেক দিনের। সারা দেশ এই ব্যবস্থার আওতায় এলে সাধারণ মানুষের হয়রানি কমবে। বর্তমান ব্যবস্থায় পাসপোর্টের জন্য আবেদন করার পর পুলিশ ভেরিভিকেশন কোন পর্যায়ে আছে, তা জানার সুযোগ নেই। দ্রুত পুলিশ ভেরিফিকেশন কোন পর্যায়ে রয়েছে, সে তথ্য জানতে রাজধানীর মালিবাগে পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) কার্যালয়ে প্রায় প্রতিদিনই ভিড় করেন অনেক আবেদনকারী।

ঢাকা রেঞ্জের ১৩টি জেলায় (ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, গোপালগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, মাদারীপুর ও শরীয়তপুর) পাসপোর্টসহ অন্যান্য প্রয়োজনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদনকারীরা তদন্ত কার্যক্রম শুরুর সঙ্গে সঙ্গে মুঠোফোনে তা জানতে পারবেন। একই সঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তাও (যিনি তথ্য যাচাই করবেন) জেনে যাবেন তার কাছে আসা আবেদনকারীর মোবাইল নম্বরসহ অন্যান্য তথ্য।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সংক্রান্ত সেবা যাতে সহজেই সাধারণ মানুষ পায়, সে জন্য ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান এসএমএস সেবা প্রদানকারী একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছেন। এই চুক্তির মাধ্যমে তদন্ত কর্মকর্তা জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে তিন দিন এবং সাধারণ পাসপোর্টের ক্ষেত্রে পাঁচ দিনের মধ্যে তদন্ত সম্পন্ন করে প্রতিবেদন পাঠাবেন।

আজকের পত্রিকা/সিফাত