দুদক কমিশনার মো. মোজাম্মেল হক থেকে প্রতিবেদন নিচ্ছেন মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, ছবি: সংগৃহীত

ওয়াসার ১১টি খাতে অনিয়ম-দুর্নীতি পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) গঠিত প্রতিষ্ঠানিক টিম। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের হাতে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন তুলে দেন দুদকের কমিশনার মো. মোজাম্মেল হক খান।

দুদক কমিশনারর বলেন, আমরা ওয়াসা নিয়ে সমীক্ষা করে দেখেছি, এখানে প্রায় ১১টি জায়গায় দুর্নীতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বা হয়েছে। এর বিপরীতে আমরা ১২টি সুপারিশ লিপিবদ্ধ করেছি। তবে এগুলো এমন অকাট্য কোনো বিষয় নয়। এই সংখ্যা আমরা কমাতে বা বাড়াতেও পারতাম।

মোজাম্মেল হক খান বলেন, আমরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পর্যবেক্ষণ করে তাদের যেসব জায়গায় দুর্নীতির সুযোগ রয়েছে বা যেসব জায়গায় দুর্নীতি ঘটে বলে বিভিন্ন ধরনের তথ্য রয়েছে, এর ভিত্তিতে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছি।

তিনি বলেন, এটা বিশাল কোনো গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠানের কাজ নয়। এটা আমাদের কর্মকর্তারা করেছেন। তবে যেগুলো বলেছি তা খণ্ডন করারও কিছু নেই। এগুলো বাস্তব কথাবার্তা।

কমিশনার স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, আমরা সেই (দুর্নীতির উৎস) কথাগুলোই আপনার জ্ঞাতার্থে বলতে চাই। যাতে ওয়াসা কর্তৃপক্ষ ও মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের একটু সংবেদশীল করতে পারেন। এই জায়গাগুলোতে যদি তারা নজর দেন, তাহলে এগুলো তো সংশোধন হবে এবং ভবিষ্যতে সমরূপ প্রকৃতির প্রজেক্ট বা কার্যক্রমগুলো নেয়া হবে সেখানে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে না।

আজকের পত্রিকা/এমইউ