অনেকেই হোয়াটস অ্যাপগ্রুপে থাকতে পছন্দ করেন না। অথচ, আপনার অনুমতি ছাড়াই হয়তো আপনারই কোনও পরিচিত নতুন কোনও গ্রুপে অ্যাড করে দিল আপনাকে। অনেকেই বিরক্ত হয়ে গ্রুপ থেকে ‘লেফ্ট’ হয়ে যান। ছবি:সংগৃহীত

মেসেজিং অ্যাপ গুলোর মধ্যে হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহার করা খুবই সহজ। তাই বিশ্বের প্রায় ১৫০ কোটি মানুষ এই মেসেজিং অ্যাপ ব্যবহার করেন। কিন্তু তবুও মাঝে মধ্যেই ছোটখাট কিছু সমস্যায় পড়েন অনেকে। যার মধ্যে একটি হলো, যে কোনও হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপে আপনার অজান্তেই অ্যাড করে দেওয়া হয় আপনাকে।

অনেকেই হোয়াটস অ্যাপগ্রুপে থাকতে পছন্দ করেন না। অথচ, আপনার অনুমতি ছাড়াই হয়তো আপনারই কোনও পরিচিত নতুন কোনও গ্রুপে অ্যাড করে দিল আপনাকে। অনেকেই বিরক্ত হয়ে গ্রুপ থেকে ‘লেফ্ট’ হয়ে যান। কিন্তু জানেন কি হোয়াটস অ্যাপ-এই রয়েছে এমন একটি ফিচার যেটির সাহায্যে ‘গ্রুপ ইনভইটেশন’ সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়!

হোয়াটস অ্যাপ-এ ‘প্রাইভেসি পলেসি’তে হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য কয়েকটি বিশেষ ফিচার রয়েছে যেখান থেকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব যে কে ‘গ্রুপ ইনভইটেশন’ পাঠাতে পারবে আর কে পারবে না। হোয়াটস অ্যাপ-এ ‘প্রাইভেসি পলেসি’তে তিনটি অপশন রয়েছে। এভরিবডি, মাই কনট্যাক্ট এবং নো বডি। এই তিনটির মধ্যে যে কোনও একটি সিলেক্ট করে নিন আর সেই মতোই গ্রুপ ইনভইটেশন পাবেন আপনি। তবে এই অপশন শুধুমাত্র বিটা ভার্সানের ফোন ব্যবহারকারীদের জন্যই প্রযোজ্য।

আজকের পত্রিকা/এসএমএস