ছবি: আজকের পত্রিকা

বাংলাদেশ ক্রিকেট পালাবদলের পথে হেঁটে চলেছে। ইংল্যান্ডের ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে স্বপ্নের যে ফানুস উড়েছিল। সেমিফাইনালে না উঠতে পেরে সেটা চুপসে গেছে। সে সময়ের কোচ স্টিভ রোডস দলের সাথে সামঞ্জস্য করতে পারেননি। মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহ ও তামিম ইকবাল মনের মত পারফর্ম করতে পারেনি। স্টিভ রোডস বিশ্বকাপের পরই চাকরি হারান। আলোচনা ও গুঞ্জন অনেক ডাল-পালা মেলে। দক্ষিণ এশিয়ার চারটি দেশেই কোচ পরিবর্তন হওয়ার পথে রয়েছে। রোডস চলে যেতেই শ্রীলংকায় চাকরি হারানো চন্ডিকা হাথুরুসিংহের নাম চলে আসে। যদিও নিউজিল্যান্ডের মাইক হেসন বাংলাদেশের কোচ হচ্ছেন সেটা প্রায়ই নিশ্চিত। তবে হেসনের চোখ ভারতেও রয়েছে।

হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের কোচ ছিলেন। তিনি বেশ সফলও হন। অবশ্য কড়া হেডমাস্টারের মতো আচরণে কয়েকজন ক্রিকেটার অসন্তুষ্ট ছিলেন তার উপর। এবার বেশ কয়েকজন কোচ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। ক্রিকেট বোর্ডের একটি পক্ষ চাইছে, হাথুরুসিংহে ফিরে আসুক। পাকিস্তান মিসবাহ উল হককে কোচ করার কথা ভাবছে। উপমহাদেশীয় কোচ হলে ভালো মনে করছে পাকিস্তান। তবে বাংলাদেশে গুঞ্জন রয়েছে হেসনই আসবেন। হেসন নিউজিল্যান্ডের কোচ ছিলেন। তবে সেখানে তিনি চাপে পড়েন। হাথুরু শ্রীলংকান ক্রিকেটারদের রোষে পড়েছেন। দিনেশ চান্ডিমাল দীর্ঘদিন দলে প্রবেশ করতে পারেননি। হেসনের রোষে রস টেলর অধিনায়কত্ব হারান আর ব্রেন্ডন ম্যাককালাম দায়িত্ব পান। বাংলাদেশের কোচ যেই হোক, এই দুজনের কেউ হলে কড়া হেড মাস্টারের কবলে পড়তে হবে। এছাড়া রাসেল ডোমিঙ্গো, গ্রান্ড ফ্লাওয়ার, পল ফারব্রেসও বিসিবির সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন।

মাশরাফি এখন নড়াইলের উন্নয়ন নিয়ে ব্যস্ত। তার জন্য একটি সিরিজ আয়োজন করে ফেয়ারওয়েল দেওয়া হবে। তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ বিশ্রাম নিতে চান। ফলে নতুন এক বাংলাদেশের দেখা পাওয়া যাবে সামনে। হেসন আইপিএলের পাঞ্জাবেরও দায়িত্বে ছিলেন। স্কিল নিয়ে প্রশ্ন নেই। বোলিং কোচ তো বাংলাদেশ পেয়ে গেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার শার্ল ল্যাঙ্গাভেল্ট ও ড্যানিয়েল ভেট্টরি আসবেন সামনে। সব মিলিয়ে বিশ্বকাপ পরবর্তী বাংলাদেশের নতুন করে পথচলা শুরু হবে।

শ্রীলংকা সফরে তামিম অধিনায়ক ছিলেন। সাকিব, মাশরাফি, সাইফউদ্দিন ও লিটন ছিলেন না। বাংলাদেশ ৩-০ তে সিরিজ হেরেছে। তামিম ও মাহমুদউল্লাহ বিশ্রামে গেলে নতুনদের জন্য চ্যালেঞ্জ হবে। সামনে জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তান আসবে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে। নভেম্বরে রয়েছে ভারত সফর। তামিম ও মাহমুদউল্লাহ ফিরলে আবার পরিবেশ ভাল হবে। তবে অধিনায়ক হবেন এবার সাকিব আল হাসান। মাশরাফি পর্ব শেষ হয়েছে। নতুন কোচ, সাকিবের হাতে নেতৃত্ব, দলে পরিবর্তন এসবই বলে দেয় বদলাতে চলেছে ক্রিকেটের চেহারা।

আর কয়েকদিনের মধ্যেই জানা যাবে প্রধান কোচের নাম। সবার ইন্টারভিউ নেওয়া হয়েছে। এখন সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য অপেক্ষা। তবে একটা কথা উঠছে। ভারত রবি শাস্ত্রীকে রাখতে চাইছে। পাকিস্তান মিসবাহকে আনবে। শ্রীলংকাও দেশের কোচ খুঁজবে। তবে বাংলাদেশ কি করবে সেটা এখন পরিস্কার। খালেদ মাহমুদ সুজন চেয়েছিলেন কোচ হতে। তবে তিনি আবেদন করেননি। ফলে বিসিবি বিদেশী কোচের দিকেই ঝুঁকেছে।

ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ শেষে ময়নাতদন্ত হয়নি। কেন বাংলাদেশ বাজে পারফরম্যান্স করল। শ্রীলংকার সিরিজ শেষেও হয়নি। এখন সবাই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট (বিপিএল) ও কোচ সন্ধান নিয়ে ব্যস্ত। ইতিহাসে বাংলাদেশের সেরা দলটি বিশ্বকাপ খেলতে গিয়েছিল। সেখান থেকে হতাশ হয়ে ফিরে তো এমন পরিবর্তন হবে সেটা অনুমেয় ছিল। ফাস্ট বোলারদের গতিহীন বোলিং, সাকিব ছাড়া আর সবাই ছিলেন নিস্তেজ। বাংলাদেশের সমস্যাটা কোথায় এটাই এখন জানার চেষ্টা করবেন হয়তো নতুন কোচ। সে যাই হোক। নতুন দিনের অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোনো উপায়ও নাই।

লেখক: মাইদুল আলম বাবু
স্টাফ রিপোর্টার, দৈনিক আমাদের সময়

আজকের পত্রিকা/সিফাত