ডায়াফ্রাম ক্র্যাম্প আপনার কণ্ঠনালীকে সংক্ষিপ্তভাবে বন্ধ করে দেওয়ার কারণে সাধারণত হেঁচকি আসে। ছবি: সংগৃহীত

হেঁচকি খুবই স্বাভাবিক বিষয়। তবে খাওয়ার সময় কিংবা অপ্রস্তুত কোনো মুহূর্তে হেঁচকি সত্যি বিরক্তিকর হয়ে ওঠে। সাধারনত এটি কয়েক মিনিট পড়ে চলে যায়। তবে সবচেয়ে বিরক্ত তখন লাগে যখন এটি দীর্ঘ সময় ধরে চলতে থাকে। ডায়াফ্রাম ক্র্যাম্প আপনার কণ্ঠনালীকে সংক্ষিপ্তভাবে বন্ধ করে দেওয়ার কারণে সাধারণত হেঁচকি আসে। এই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রানের উপায়-

নিঃশ্বাস ধরে রাখুন

হেঁচকি থামানোর সবচেয়ে সহজ ও সাধারণ উপায় হলো শ্বাস ধরে রাখা। ছবি: সংগৃহীত

হেঁচকি থামানোর সবচেয়ে সহজ ও সাধারণ উপায় হলো শ্বাস ধরে রাখা। শ্বাস ধরে রাখলে ফুসফুসের মধ্যে কার্বন ডাই অক্সাইড তৈরি হয়, যা আপনার ডায়াফ্রাম শিথিল করতে পারে।

এক চামচ চিনি খান

চিনি ভেগাস নার্ভকে প্রভাবিত করে, যা সরাসরি পাকস্থলি ও মস্তিষ্কের সাথে সংযুক্ত। ছবি: সংগৃহীত

এক চামচ চিনি খেলেও হেঁচকি থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব। ১৯৭১ সালের এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে ২০  জন মানুষের মধ্যে ১৯ জনের হেঁচকি দূর হয়ে গিয়েছে চিনি খাওয়ার পর। চিনি ভেগাস নার্ভকে প্রভাবিত করে, যা সরাসরি পাকস্থলি ও মস্তিষ্কের সাথে সংযুক্ত।

টক কিছু খান

লেবুর মতো টক জাতীয় খাবার হেঁচকি দূর করতে পারে। ছবি: সংগৃহীত

ভিনেগার বা লেবুর মতো টক জাতীয় খাবার হেঁচকি দূর করতে পারে। এক টুকরা লেবু নিয়ে জিহ্বায় রেখে চুষতে শুরু করুন। অথবা এক চামচ ভিনেগার খেয়ে ফেলুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই হেঁচকি দূর হয়ে যাবে।

চিনাবাদাম বা মধু

বিশেষজ্ঞরা বলেন চিনাবাদাম মস্তিষ্ক শিথিল করতে এবং শ্বাস নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। ছবি: সংগৃহীত

বিশেষজ্ঞরা বলেন চিনাবাদাম মস্তিষ্ক শিথিল করতে এবং শ্বাস নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। মধুও চিনাবাদামের মতো কাজ করে। দুই-তিনটি চিনাবাদাম কিংবা এক চামচ মধু খান, কিছুক্ষণ পর হেঁচকি বন্ধ হয়ে যাবে।

আজকের পত্রিকা/রিয়া/এমএইচএস

SOURCEই টাইমস