রিয়াজুল হক। ছবি: সংগৃহীত

অফিসিয়াল কাজে বেনাপোল যাবার জন্য ট্রেনে উঠলাম। সাথে আরও তিনজন সহকর্মী ছিল। গল্প গুজবে ভালোই সময় কাটছিল। যশোর পার হবার পর হঠাৎ চিল্লাপাল্লা শুনতে পেলাম। ষাট বছরের একজন বয়স্ক মানুষ বনাম ত্রিশ বছরের একজন রোগা যুবক। দুই জনের একটা নির্দিষ্ট আসনে বসা নিয়ে অকথ্য ভাষায় ঝগড়া। পারলে গায়ে হাত তোলে। দুই জনই সমান। কারো প্রতি সহানুভূতি দেখানোর সুযোগ ছিল না।

প্রায় মিনিট বিশেক দুই জন চিৎকার চেঁচামেচি করার পর, সেই আসনটির সামনে আর পিছনে দুইজন দাঁড়িয়ে থাকলো। আসনটি ফাঁকা। কিন্তু জেদের কারণে দুই জনের কেউ সেই আসনটিতে আর বসলো না। আবার দুইজনের কেউ যে অন্য আসনে গিয়ে বসবে, সেটাও করলো না। দাঁড়িয়ে থেকেই বেনাপোল এসে নামলো।

হায়রে বাঙালি। নিজেও খাবে না, আবার অন্য কেউ যাতে না খেতে পারে, সেটার জন্য নিরন্তর চেষ্টা।

লেখক: রিয়াজুল হক; উপ পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক

আজকের পত্রিকা/সিফাত