ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হাটে গিয়ে সরাসরি কৃষকদের থেকে ধান কিনেছেন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ, এস, এম মাঈন উদ্দিন।ছবি :সংগৃহীত

ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হাটে গিয়ে সরাসরি কৃষকদের থেকে ধান কিনেছেন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এএসএম মাঈন উদ্দিন।

২৩ মে বৃহস্পতিবার বেথুড়ী ইউনিয়নের রামদিয়া হাটে গিয়ে তিনি ধান কেনেন। সরকার নির্ধারিত মূল্যে ধান বিক্রি করতে পেরে এ সময় সন্তোষ প্রকাশ করেন কৃষকেরা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মো. হানিফ, রামদিয়া খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা রিজাউল করীম, ভাটিয়াপাড়া খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন।

উপজেলা খাদ্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, কাশিয়ানী উপজেলা থেকে এ বছর মোট ৩৭৯ মেট্রিক টন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যার কেজি প্রতি মূল্য ২৬ টাকা দরে কৃষকদের দেয়া হবে। আগামী ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত ধান সংগ্রহ অভিযান চলবে।

কৃষক সাহিদ মোল্যা বলেন, ‘ধানের দাম নিয়ে হতাশায় ভূগছিলাম। কিন্তু, সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনায় আমি ধানের ন্যায্যমূল্য পেয়েছি। এভাবে প্রতি বছর কৃষকের কাছ থেকে ধান কিনলে আমরা উপকৃত হবো।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএসএম মাঈন উদ্দিন বলেন, ‘কঠোর পরিশ্রম করে ফসল ফলানোর পরেও ন্যায্য দাম পান না কৃষকরা। এবার ধান সংগ্রহ কোনো মধ্যস্বত্বভোগী যাতে সুযোগ নিতে না পারে এবং কৃষক যাতে ধানের ন্যায্যামূল্য পায় সে জন্য সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/ মোজাম্মেল হোসেন মুন্না/গোপালগঞ্জ