প্রতীকী ছবি

হবিগঞ্জ শহরতলীর আলমপুরে দুই দলের সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। বিল নিয়ে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষ চলাকালে রিপন মিয়া (৩২) নামের এক ব্যক্তির পেট ছিদ্র হয়ে পিট দিয়ে বের হয় টেঁটা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

১২ জানুয়ারি শনিবার রাত ৭টা থেকে ৮টা পর্যন্ত সংঘর্ষ চলে। আহত রিপন আলমপুরের মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে। সংঘর্ষে রিপন ছাড়াও অন্তত ২০ জন আহত হন।

স্থানীয় লোকজন জানান, আলমপুরের রিপন মিয়ার সাথে একই গ্রামের মাস্টার মিয়ার জলমহালকে ঘিরে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে শনিবার উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। সংঘর্ষ চলাকালে একপক্ষ অপর পক্ষের ঘরবাড়িতে হামলা-ভাংচুর ও লুটপাট করে।
সংঘর্ষে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত সুলতান মিয়া (২০) ও মোছাব্বির মিয়া (২২) সহ অন্তত ১০ জনকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি তদন্ত) জিয়াউর রহমান আজকের পত্রিকাকে জানান, পুলিশ ৮ দাঙ্গাবাজকে আটক করেছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ত্রিলোক কান্তি চাকমা আজকের পত্রিকাকে জানান, রিপনের অবস্থা অশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সিলেটে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আহতদের চিকিৎসা চলছে এখানে।

আজকের পত্রিকা/শায়েল/ফয়ছল/১২/০১/২০১৯