স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের কারনে মাতৃমৃত্যুর হার হ্রাস পেয়েছে ; মোকতাদির চৌধুরী এমপি।ছবি:সংগৃহীত
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরি এমপি বলেছেন, বর্তমান সরকার স্বাস্থ্যসেবাকে জনগনের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে কাজ করছে। সরকার গ্রামাঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্যসেবাকে নিশ্চিত করার লক্ষ্যে দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করেছে। এসব ক্লিনিক থেকে জনগনকে বিনামূল্যে ২৭ প্রকারের ঔষধ দেয়া হচ্ছে।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নের জন্য জন্মনিয়ন্ত্রন দরকার। তিনি বলেন, সরকার চায় পরিকল্পিত জনসংখ্যা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পরিকল্পিত জনসংখ্যাকে বাকশাল কর্মসূচীতে অন্তভুক্ত করেছিলেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের কারনে মাতৃমৃত্যুর হার হ্রাস পেয়েছে। নবজাতকের মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। জনগনের গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে দেশের ১০টি জেলায় মামনি প্রকল্প চালু হয়েছে। এর মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া হচ্ছে একটি তিনি বলেন, মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে মামনি প্রকল্প একটি নতুন প্রকল্প। তিনি বলেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে মা ও নবজাতকরা পর্যাপ্ত সেবা পাবে।অনুষ্ঠানে জেলার বিভিন্ন উপজেলার নির্বাহী অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তা, চিকিৎসক, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
সোমবার (১০ জুন) দুুপুর ১২ টায় স্থানীয় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের ইউএসএআইডি’র “মামনি” এমএনসিএসপি প্রকল্পের সহযোগিতায় মা ও নবজাতকের সেবা উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডাইরেক্টর, এমএনসিএন্ডএএইচ ডাঃ শামসুল হক এবং মামনি এমএনসিএসপির চিফ অফ পার্টি জবি জর্জ।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আবু সাঈদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেন, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপ-পরিচালক মোঃ আবুল কালাম, জেলা বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শাহ আলম।
আজকের পত্রিকা/মোঃ এনামুল হক,ব্রাহ্মণবাড়িয়া/রাফাত