আত্মহননকারী সুবর্ণা রাণী।

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়িতে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার উপজেলার বালিগাঁও ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে মৃত অনিল মন্ডলের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে মৃত অনিল মন্ডলের ছেলে হৃদয় মন্ডলের স্ত্রী সুবর্ণা রানী মন্ডল (২২) ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় শাড়ি পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

এ দিকে পরিবারের পক্ষে থেকে বলা হচ্ছে সুবর্ণা রানী মন্ডলকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে।

সুবর্ণা রানী মন্ডলের মা রেখা রানী মন্ডল জানান, বিগত ১৮ মাস আগে আমার মেয়ের সাথে মৃত অনিল মন্ডলের ছেলে হৃদয় মন্ডলের বিবাহ হয়। বিয়ের ৩-৪ মাস পরে হৃদয় মন্ডল বিদেশ চলে যায়।

সে সুবাদে হৃদয় মন্ডলের মেজো বোনোর স্বামী অঞ্জন মন্ডল আমার মেয়েকে বিভিন্ন ধরনের উত্ত্যক্ত করতো। এক পর্যায়ে মেয়ের শরীরে হাত দেয় এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ ঘটনা আমাকে বললে আমি মেয়ের জামাতা হৃদয় মন্ডলকে অবগত করি। কিন্তু তারা বিষয়টি হাস্যকরভাবে নেয়।

তিনি আরও বলেন, অঞ্জন মন্ডল আমার মেয়েকে বিভিন্ন সময় বিয়ের কথা বলতো এবং পালিয়ে যাওয়ার কথা বলতো। সুবর্ণা রানী মন্ডল তার স্বামী হৃদয় মন্ডলকে এ বিষয়ে জানালে তিনি সুবর্ণা কে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করতো বলে জানা যায়।

এর সূত্র ধরে সুবর্ণা রানী মন্ডল আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করছে তার পরিবার।

তিনি আরও বলেন, আমার মেয়ে স্টোক করেছে বলে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে আমাকে জানানো হয়। পরে বাড়ি গিয়ে জানা যায় আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় সুবর্ণা রানী মন্ডলের মা রেখা রানী মন্ডল বাদী হয়ে টঙ্গিবাড়ি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে টঙ্গিবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ মো. আওলাদ হোসেন জানায়, এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষটি তদন্তাধীন রয়েছে। যদি এমন কোন ধরনের বিষয় বস্তু পাওয়া যায় তাহলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

মঈনউদ্দিন সুমন/মুন্সীগঞ্জ