ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাগুইআটির আটঘরায় গত সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। প্রতিবেশী যুবক শেখ ইলিয়াসের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়ান আটঘরা তরফদারপাড়ার আর্জিনা বিবি।

স্বামী মোজাফ্ফর হোসেন এই সম্পর্কে কথা জেনে গেলে দুজনের মধ্যে কলহ চলছিল। সোমবার রাতে মোজাফ্ফর হোসেনকে খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে দেন স্ত্রী আর্জিনা।

এতে অচেতন হয়ে পড়লে খাটের সঙ্গে বেঁধে তার গোপনাঙ্গে আঘাত করা হয়। এরপর স্বামীর মৃতদেহ লুকিয়ে ফেলতে মধ্যরাতে প্রেমিকের সঙ্গে বের হন আর্জিনা।

মোজাফ্ফরের মরদেহ একটি ভ্যানে তুলে দুজনে বের হন। বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তারা যান এয়ারপোর্ট থানার সালুয়ায়। সেখানে মোজাফ্ফরের আত্মীয় নজরুল শেখ ও ফরিদা বিবি থাকেন। মরদেহটি ওই আত্মীয়দের বাড়িতে রেখে চলে আসতে চেয়েছিলেন তারা। কিন্তু ওই সময় কয়েকজন তাদের দেখে ফেলেন। জিজ্ঞাসাবাদ করতেই আর্জিনা ও ইলিয়াস জানান, মোজাফ্ফর হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

তবে আচরণে সন্দেহ হলে দুজনকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। জেরার মুখে খুনের কথা স্বীকার করে আর্জিনা ও ইলিয়াস।পরে পুলিশ এসে দুজনকে গ্রেপ্তার করার পাশাপাশি মোজাফফরের মরদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে। প্রাথমিক তদন্তে দেখা যায়, মরদেহের একাধিক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এমনকি গোপনাঙ্গেও গুরুতর আঘাত ছিল।

আজকের পত্রিকা/রাফাত