সোহেল তাজ ও তার ভাগ্নে

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার বটতলা বাজারের জামিল অটোরাইসমিলের সামনের রাস্তায় ২০ জুন বৃহস্পতিবার ভোর সোয়া পাঁচটার দিকে ‘হঠাৎ বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে এগিয়ে গিয়ে জামিল অটো রাইসমিলের ফোরম্যান ছমির উদ্দিনসহ অন্যান্য কর্মচারীরা হাত বাঁধা অবস্থায় সৌরভকে দেখতে পেয়ে তাকে অটোরাইসমিলের ভেতরে নিয়ে যান।

পরে তারা সৌরভের হাতের বাধন খুলে দিয়ে পরিচয় জেনে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজের ভাগ্নে ইফতেখার আলম সৌরভের (২৫) হদিস মেলার তথ্য ফোন করে প্রথমে তার পরিবারকে জানায় মিলের ফোরম্যান ছমির উদ্দিন।

তারাকান্দা উপজেলার বটতলা বাজারের জামিল অটোরাইসমিলের ফোরম্যান ছমির উদ্দিনসহ ওই সময়ে কর্মরত শ্রমিকরা জানান,‘ভোরে কাজ করার সময় ‘হঠাৎ বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে রাস্তায় এগিয়ে গিয়ে হাত বাঁধা অবস্থায় একটি লোককে দেখতে পেয়ে তাকে অটোরাইসমিলের ভেতরে নিয়ে যাওয়ার পর প্রথমে হাতের বাঁধন খুলে দিয়ে পরিচয় জেনে তার পরিবারের কাছে ফোরম্যান ফোরম্যান ছমির উদ্দিন নিজেই এ বিষয়টি জানান।’

এরপর পরিবারের পক্ষ থেকে চট্রগ্রাম পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ-কমিশনার মো.শহীদুল্লাহকে জানানো হলে তিনি ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ আবিদ হোেেসনকে বিষয়টি জানান।তাৎক্ষণিক ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ আবিদ হোেেসন নিজেই বেরিয়ে পড়েন সৌরভকে উদ্ধারে। পুলিশ সুপার, ডিবি’র ওসি ও তারাকান্দা থানার ওসি পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। পরে সকাল সোয়া ৬টার দিকে তিনি সৌরভকে অক্ষত ও সুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে নিজ কার্যালয়ে নিয়ে আসেন।

পরে সকাল পৌনে ৯টার দিকে সৌরভকে পুলিশ হেফাজতে ঢাকায় তার নিজ স্বজনদের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। নিখোঁজের ১১ দিনের মাথায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজের ভাগ্নে সৌরভকে এভাবেই উদ্ধারের বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে এভাবেই জানালেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ আবিদ হোসেন।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকাল ৯টার দিকে এ উদ্ধার অভিযানের পুরো বর্ণনা দিতে গিয়ে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) বলেন, ‘ভোর ৫টা থেকে সোয়া ৫টার দিকে ছমির উদ্দিন নামে জামিল অটোরাইসমিলের ফোরম্যানছমির উদ্দিন অপহৃত সৌরভের পরিবারকে প্রথমে ফোন করে তাকে পাওয়ার তথ্য জানায়।

এরপর চট্রগ্রাম পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ-কমিশনার মো.শহীদুল্লাহ আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানালে আমি ৫টা ৫০ মিনিটের দিকে তারাকান্দার বটতলা বাজারে পৌঁছে তাকে উদ্ধার করে এখানে নিয়ে আসি।

শাহ আবিদ হোসেন আরো বলেন, সৌরভ সম্পূর্ণ সুস্থ্য আছেন। তবে যেহেতু ১১ দিন তিনি নিখোঁজ ছিলেন, এজন্য তার পোশাক-আশাক পুরাতন ছিল। আমার এখানে নিয়ে আসার পর ফ্রেশ হয়ে পোশাক চেঞ্জ করে তিনি খাওয়া-দাওয়া করেছেন।

তবে সৌরভকে কারা নিয়ে গিয়েছিল এবং কারা তাকে তারাকান্দায় ফেলে গেছে, ১১ দিন তাকে কোথায় কীভাবে রাখা হয়েছিল, সেসব বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন।

এর আগে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও তারাকান্দা থানা পুলিশ জানায়, চট্রগ্রাম থেকে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিনের মাথায় বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ভোর সোয়া ৫টার দিকে অপহরণকারীরা তারাকান্দা ইউনিয়নের জামিল রাইস মিলের সামনে একটি গাড়ি থেকে সৌরভকে রাস্তায় ফেলে রেখে দ্রুত গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়।

আজকের পত্রিকা/আজিজুর/রফিক/এমএআরএস