মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় ৬ জুলাই (শনিবার) থেকে সমুদ্র ও ভূমিধসের সতর্কবার্তা জানিয়ে আসছিল বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর। বুধবারও মৌসুমী বায়ু সক্রিয় রয়েছে। তবে উপকূলীয় অঞ্চলের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা না থাকায় সমুদ্র বন্দর থেকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলেছে সংস্থাটি। তবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকায় চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ী এলাকায় ভূমিধসের সতর্কবার্তা অব্যাহত রেখেছে আবহাওয়া অফিস। বুধবার রাতে আবহাওয়া অধিদফতর এ তথ্য জানিয়েছে।

সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী (৪৪-৮৮ মিলিমিটার) থেকে অতি ভারী (৮৯ মিলিমিটারের বেশি) বৃষ্টিপাত হতে পারে। অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ী এলাকায় কোথাও কোথাও ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে। সংস্থাটি জানিয়েছে, বুধবার (১০ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টা সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এ ২৪ ঘণ্টা পরবর্তী দু’দিন বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের কার্যকারিতাও অব্যাহত থাকতে পারে। তবে এ দু’দিন পরবর্তী পাঁচ দিনে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

সন্ধ্যার পূর্বাভাসে বলা হয়, বুধবারও মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশে সক্রিয় রয়েছে। এর প্রভাবে রংপুর, ময়মনসিংহ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

রংপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও সিলেট অঞ্চলের উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/আরকে