ওসি মাহবুবুর রহমান

সম্প্রতি চিরিরবন্দর থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেছেন অভিজ্ঞ ও দক্ষতায় অনন্য পিপিএম মো.মাহবুবুর রহমান সরকার। যোগদানের পর থেকেই চিরিরবন্দর থানার সামাগ্রিক পরিস্থিতি উন্নতির পথে। নবাগত ওসি হিসাবে তিনি যোগদান করে তাঁর টিমকে সাথে নিয়ে চিরিরবন্দর মডেল থানা করার জন্য মাদকমুক্ত ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে কাজ করে যাচ্ছেন ।

থানাকে দালালমুক্ত করতে তার সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনায় থানার যাবতীয় কার্যক্রম ফলোআপে এনেছেন। একটি নির্ভর যোগ্য সূত্রে জানা যায়, তিনি ওসি যোগদানের পর থেকে অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ী এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছে। যারা ইয়াবা ব্যবসা করে অনেক যুবকের জীবন নষ্ট করেছেন। বর্তমানে তারা চরম আতঙ্কে রয়েছে এবং বিভিন্ন জায়গায় তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

চিরিরবন্দর থানার বাসিন্দা শেফালী রাণী নামে এক ভদ্র মহিলা বলেন, যে কোন সমস্যার অভিযোগপত্র দাখিল করলে তিনি সাথে সাথে তা আমলে নিয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের জন্য নির্দেশ দেন। ওসির আন্তরিকতা সেবার মন মানসিকতার প্রশংসা করে থানার সকলের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

অনেক সচেতন মহল মনে করেন, চিরিরবন্দর থানার বর্তমান ওসির কার্যক্রম গুলো চিরিরবন্দর উপজেলায় নিদর্শন। মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করবেন। চিরিরবন্দর থানায় তিনি কাজকে কাজের মত দেখে তার কর্মকান্ডগুলো বাস্তবায়ন করবেন । সুন্দর, বাসযোগ্য থানা গড়তে সচেতন মহল চিরিরবন্দর থানার নবাগত ওসির কাছে প্রত্যাশা করেছেন।

চিরিরবন্দর থানায় কর্মরত এক অফিসার জানান, স্যার সৃজনশীল মানুষ, যোগদানের পর থেকে তিনি এক রাত ও ঘুমান নি। রাত দিন তিনি চিরিরবন্দর থানার শান্তি শৃঙ্খলা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন। অভিযান পরিচালনাসহ ঝুলন্ত মামলা গুলোর ফাইনাল রিপোর্ট এবং চার্জশীট প্রদানে তদন্তকারী কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান করেন।

এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান সরকার বলেন, দেশ সেবার মন মানসিকতা নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেছি, সে থেকে এ পর্যন্ত সততার বাস্তবায়নে কার্যক্রম চালিয়ে আসছিসামগ্রিক কার্যক্রমগুলো সফলভাবে সম্পাদন করার জন্য তিনি সচেতন মহল জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ সকলের প্রতি মাদক ব্যবসায়ীদের তথ্য দিয়ে সার্বিক সহযোগিতা করার আহ্বান জানান এবং তথ্যদাতাদের নিরাপত্তার স্বার্থে নামসমূহ গোপন করা হবে বলে জানান তিনি।

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন/চিরিরবন্দর