কাজী ফয়সাল
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

জব্দ করা পঁচা মুরগী। ছবি: সংগৃহীত

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমিতি ভবনের রেস্টুরেন্ট ‘অলিম্পিয়া প্যালেসের’ ফ্রিজে পঁচা মুরগি পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ওই রেস্টুরেন্টটিকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ১৯ জুন বুধবার সন্ধ্যায় এ জরিমানা করা হয়।

সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, আপাতত রেস্টুরেন্টকে ২ লাখ টাকা জরিমানা ও রেস্টুরেন্টটি ২৩ জুন রবিবার পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে। রবিবার আমরা কমিটির সবাই বসে রেস্টুরেন্টের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো।

এর আগে বিকালে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচিত সদস্য আইনজীবী শামীম সরদারের নেতৃত্বে সমিতির কয়েকজন সদস্য অভিযান চালিয়ে দুর্গন্ধযুক্ত আস্ত পঁচা মুরগি জব্দ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আইনজীবী বলেন, দুপুরে ক্যান্টিনের খাবারে মাছি পাওয়া নিয়ে এক আইনজীবী ফেসবুক স্ট্যটাস দেন। এরপর বিষয়টি আইনজীবী সমিতির দৃষ্টিগোচর করা হলে তারা সমিতি ভবনের চতুর্থ তলায় অবস্থিত রেস্টুরেন্ট অলিম্পিয়া প্যালেসে অভিযান চালায়। তখন তারা ফ্রিজের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে থাকা পঁচা মুরগি, মসলামিশ্রিত মুরগি ও সালাদ উপকরণ জব্দ করেন।

এদিকে সরেজমিনে দেখা গেছে, রেস্টুরেন্ট পঁচা মুরগি পাওয়ার ঘটনা দ্রুততম সময়ের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ায় আইনজীবীরা রেস্টুরেন্টের সামনে ভিড় জমান। তখন তারা রেস্টুরেন্টের লাইসেন্স বাতিল, সমিতির সঙ্গে করা লিজ বাতিল ও জড়িতদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানান।

ঘটনার পর আইনজীবী সমিতির সদস্য শামীম সরদার কমিটির কয়েকজন সদস্যকে নিয়ে জরুরি বৈঠক করেন। পরে ওই বৈঠকে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন, সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেড আই খান পান্নাসহ কয়েকজন আইনজীবী যোগ দেন। পরে সমিতির সম্পাদক রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার সোহানের কাছে পঁচা মুরগি রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি স্বীকার করেন। একপর্যায়ে রেস্টুরেন্টের ভেতরে ও বাইরে অবস্থানরত আইনজীবীরা রেস্টুরেন্টটির সঙ্গে সমিতির লিজ বাতিল করার দাবি জানান।

এর একদিন আগে ১৭ জুন সোমবার পেঁয়াজুর ভেতর কার্টনের বড় পিন পাওয়ার ঘটনায় সুপ্রিম কোর্টের ক্যান্টিন মালিককে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছিলো।

আজকের পত্রিকা/কেএফ