বুধবার সচিবালয়ে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে ‘গন্তব্য’ চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে গিয়ে প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়া অরণ্য পলাশকে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ নিজের পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা হস্তান্তর করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি নিজে যখন বিদেশে পড়াশোনা করতাম, তখন হোটেল-রেস্তোরাঁয় কাজ করতাম। অর্থাৎ আমি নিজেও টি-বয়ের কাজ করতাম। সেখানে অবশ্য টি-বয় বলে না, ওয়েটার বলে। এটি বলতে আমার কোনো দ্বিধা নেই যে আমি সেই কাজ করতাম। একদিন দুদিন নয়, আমি বিদেশে অনেক দিন ছিলাম মাস্টার্স ও ডক্টরেট করার জন্য। সেখানে অনেক দিন কাজ করেছি, মাসের পর মাস। কোনো কাজই অসম্মানের নয়।’

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমি আবারও বলব, কোনো কাজই কিন্তু অসম্মানের না, সব কাজই সম্মানের এবং সমাজের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনো কাজকে কোনো পেশাকে অসম্মানিত করে কোনো কিছু বলা কারও উচিত নয়। সব মানুষ সম্মানের, সব কাজ সম্মানের।’

জানা গেছে, তরুণ চলচ্চিত্র পরিচালক অরণ্য পলাশ নির্মাণ করেছিলেন ‘গন্তব্য’ নামের পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি। ছবি নির্মাণ এবং সেন্সর বোর্ডের অনুমোদন নেওয়া হলেও পরিচালক ছবিটি মুক্তি দিতে পারেননি।

এ প্রসঙ্গে একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অরণ্য পলাশ বলেন, ‘ছবির প্রযোজক আমি। আমার সর্বস্ব শেষ করে “গন্তব্য” সিনেমাটি নির্মাণ করেছি। বিভিন্ন জায়গা থেকে সুদে ঋণ নিয়ে, জমি বিক্রি, স্ত্রীর গয়না বিক্রি করে সিনেমার কাজ শেষ করেছি। ২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর ছবিটি সেন্সর বোর্ডের অনুমোদন পায়। কিন্তু ছবিটি মুক্তির জন্য আমার কাছে টাকা নেই। এই ছবিটি নির্মাণ করতে গিয়ে আমি আমার সব হারিয়েছি। আমার আত্মীয়স্বজন আমাকে ছেড়ে চলে গেছে।’

অরণ্য পলাশ বলেন, ‘আমি এখন মিরপুরে একটি রেস্তোরাঁতে হোটেল বয়ের কাজ করছি। দেখুন আমার নিজেকে চলতে হবে। আমি অনেক জায়গায় চাকরি খুঁজেছি। সবাই বলেছেন, আগে সিনেমা রিলিজ দাও তারপর। এভাবে তো চলতে পারে না। আমার পেট চালাতে হবে। তাই দৈনিক ২৫০ টাকা হাজিরা ও তিন বেলা খাওয়ার চুক্তিতে রেস্তোঁরায় কাজ করছি।’

ছয় বন্ধু মিলে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ এবং সেই চলচ্চিত্রটি সারা দেশে প্রদর্শন করানোর ঘটনা নিয়ে গড়ে উঠেছে সিনেমার কাহিনি। গল্পে আছে দুটি ভাগ, একটি শহরের, অন্যটি গ্রামের।

অনুষ্ঠানে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসান, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও চলচ্চিত্র) মো. মিজান-উল-আলম, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান, চলচ্চিত্র পরিচালক অরণ্য পলাশ ও তাঁর নির্মিত ‘গন্তব্য’ চলচ্চিত্রের অন্যতম প্রযোজক এলিনা শাম্মীসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।