সিংড়া বাস মালিক সমিতির একটি বাস।

দুই মালিক সমিতির দ্বন্দ্বের জের ধরে সিংড়া মোটর মালিক সমিতির একটি বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়ে নাটোর জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতি।

বুধবার সকালে সিংড়া এলিগেন্স নামে রাজশাহীগামী একটি বাস থেকে যাত্রী নামিয়ে দেয় নাটোর মালিক সমিতির লোকজন।

এনিয়ে দুই মালিক সমিতির দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারন করেছে। সিংড়া মোটর মালিক সমিতির বাস চলাচলে বাধা দেওয়া হলেআগামী দিনে ধর্মঘট সহ বিভিন্ন কর্মসূচির হুশিয়ারীদিয়েছে তারা।

বিষয়টি সমাধানে জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপও কামনা করেছেন তারা।

সূত্র জানায়, বেশ কিছু ধরে জেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সিংড়া এলিগেন্স পরিবনের মালিক হাসানইমাম তার সিংড়া এলিগেন্স নামের একটি বাস সরাসরি উপজেলার বামিহাল থেকে রাজশাহী চলাচল করাছিলেন। কিন্তু বিষয়টি ভাল ভাবে গ্রহন করছিলনা নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতি।বুধবার সকালে বামিহাল থেকে ২৮জন যাত্রী নিয়ে রাজশাহীর উদ্দ্যেশে রওনা দেয় সিংড়া এলিগেন্স নামের একটি বাস। পরে বাসটি নাটোর পুরাতন বাস টার্মিনাল মাদ্রাসা মোড়ে এসে পৌছঁলে নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতির নির্দেশে মাস্টার বেলার হোসেন গাড়ীর সকলযাত্রীদের বাস থেকে নামিয়ে দেয় এবং বাসটি চলাচলে বাঁধা প্রদান করেন।

পরে বাসটি নিয়ে সিংড়ায় চলে যায় চালক।

সূত্র আরো জানায়, জেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসান ইমাম সরাসরি বামিহাল থেকে রাজশাহী বাস চলাচলের জন্য রাজশাহী মালিক সমিতির অনুমতিও গ্রহন করেন।

এ বিষয় নিয়ে নাটোর বাস মালিক সমিতিকে চিঠি দিলেতারা গ্রহন করেনি। পরে রাজশাহী বাস মালিক সমিতির অনুমতি নিয়েই বাসটি পরিচালনা করে আসছিল মোটরমালিক সমিতি। কিন্তু গত মাসের ২৫ মার্চ থেকে নাটোর বাসমালিক সমিতি বাধা প্রদান করে আসছিল।অভিযোগ রয়েছে, সিংড়া থেকে ঢাকা গামী বেশি কিছুসিংড়া এলিগেন্স এর বাস কাউন্টার বন্ধ করে দিয়েছে নাটোর বাস মালিক সমিতি।

নাটোর হরিশপুর বাস টার্মিনাল,কাছিকাটা বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজারে সিংড়া মালিক সমিতির বাস কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে। নাটোর পুরাতন বাস টার্মিনালের চেইন মাস্টার বেলাল হোসেনবলেন, নাটোর বাস মালিক সমিতি আমাকে সিংড়া এলিগেন্স এর বাস চলাচলে বাঁধা প্রদান করার জন্য হুকুম দেয়, আমি শুধু মাত্রহুমুক পালন করেছি।

এবিষয়ে নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি লক্ষন পদ্দার বলেন, আমার সমিতির সাথে কোন আলাপ-আলোচনা না করেনি সিংড়া মালিক সমিতি। তারা গায়ের জোরেই গাড়ী চালাচ্ছে। তারা কোন অনুমতিও নেয়নি। তারা গাড়ী চালালে আমাদের সাথে বসুক।

তিনি আরও বলেন, সিংড়া এলিগেন্স এর কোন গাড়ীর কাউন্টার বন্ধ করা হয়নি। তাদের ৮/৯ গাড়ী দিয়ে তারা সমিতি খুলেগাড়ী চলাচল করাছে। নিয়মনীতির বাহিরে তো আমরা গাড়ী চালাতে দিবনা।এ বিষয়ে জেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওসিংড়া এলিগেন্স পরিবহনের মালিক হাসান ইমাম বলেন, জেলা মোটর মালিক সমিতি একটি বৈধ সংগঠন। নাটোর মালিকসমিত যেখান থেকে রেজিষ্ট্রেশন নিয়েছে জেলাা মোটর মালিক ও সেখান থেকে নিয়েছে।

এখানে বৈধ ও অবৈধ কোন প্রশ্ন নেই। তিনি আরও বলেন, রাজশাহী বাস মালিক সমিতির অনুমতি নিয়েই বামিহাল থেকে রাজশাহী সরাসরি বাস চলাচল করছিল।তাছাড়া বাসটি চলাচলের জন্য নাটোর বাস মালিক সমিতিকেচিঠি ইস্যু করি, তারা গ্রহন করেনি।পরে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে তাদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছি। কিন্তু নাটোর বাস মালিক সমিতি গায়ের জোরে তারা আমার বাসটি চলাচলে বাঁধা দিয়ে আসছে।

মোটর মালিক সমিতির সকল বাসই বৈধ ভাবে চলাচল করে আসছে।

হাসান ইমাম অভিযোগ করে বলেন, আমার বেশ কিছু বাস সিংড়া থেকে ঢাকা চলাচল করে। এরজন্য নাটোর হরিশপুর বাস টার্মিনালে, কাছিকাটা বাজার সহ বেশি বাজারে কাউন্টার খোলা হয়, কিন্তু আমার সকল কাউন্টার তারা বন্ধ করে দিয়েছে। বিষয়গুলো নাটোরের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানানো হয়েছে। তারপরও বিষয়গুলো সমাধাননা হলে পহেলা মে দিবসের পর বাস ধর্মঘটসহ বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন করা হবে।

এবিষয়ে নাটোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ শাহরিয়াজ বলেন, সিংড়া মালিক সমিতির একটি বাস নাকি নাটোর মালিক সমিতি চলাচল করতে দিচ্ছে না, এমন বিষয়গুলো অবহিত হয়েছি। উভয় পক্ষের কাছ থেকে শুনে বিষয়টি মিমাংসার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

পরিতোষ অধিকারী/নাটোর