প্রতীকী ছবি

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় সংঘর্ষে রাসেল শেখ (২৭) নামের এক আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন ৩০জন।

১০ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকালে উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের বড় বাহিরদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবক রাসেল শেখ মঞ্জু মাতব্বরের সমর্থক ও বড় বাহিরদিয়া গ্রামের খালেক শেখের ছেলে ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের কর্মী। তিনি পেশায় কৃষক ছিলেন।

আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ১১ রাউন্ড শটগানের গুলি ও ২ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের ইউপি মেম্বার বড় বাহিরদিয়া গ্রামের মঞ্জু মাতব্বরের সঙ্গে সাবেক মেম্বার লুৎফর মোল্যার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে।

এরই জের ধরে রবিবার সকাল ৭টার দিকে ঢাল, সড়কি, রামদা, স্যানদা, বল্লম, টেঁটা, ইটপাটকেলসহ দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্র নিয়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয়পক্ষের হামলা-পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের হামলায় রাসেল শেখ নিহত হন। এ সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন।

সালথা থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।