আসাদুল ইসলাম আসমত, আজকের পত্রিকার বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধিঃ তিনি জানাচ্ছেন এবছর তার ঈদুল আযাহা উদযাপনের কথা।

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার ভরতপুর গ্রামে আমার বাড়ী। সামাজিক দায়িত্ব  আমার ঈদ আনন্দকে ব্যস্ত করে দিয়েছিলো।

বিগত বছরের মতো আমাকে গ্রামের সামাজিক কমিটির সিদ্ধান্তক্রমে সরকারি (মিসকিন) মাংসের সুষম বন্টন কমিটির আহবায়ক করা হয়।

সেই দ্বায়িত্ব নিয়ে সকালে সরকারি বিধি নিষেধ মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ঈদের নামায আদায় করেই শুরু হয়েছিলো গ্রামের কোরবানি দাতাদের কাছ থেকে সরকারি (মিসকিন) ভাগ সংগ্রহ করা।

পরে সেই মাংস সংগ্রহ করে গ্রামের হতদরিদ্র মানুষদের মাঝে ধর্মিয় নিয়ম মেনে সুষম বন্টন করতে প্রায় সন্ধে হয়ে যায়।

যার কারনে পরিবারের কারো সাথেই সময় ঈদ আনন্দ ও উল্লাস করতে পারি নাই।
তবে এবার ঈদুল আযহার ঈদ আমার সব থেকে দায়িত্বে কাটল।

  • 177
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    177
    Shares