আত্মহত্যা। প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরা সদরের ব্রক্ষরাজপুর এলাকায় আঁখি বসু (২১) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১২ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে ঘরের মধ্যে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেচানো অবস্থায় ওই মরদেহ উদ্ধার করে। তবে এ মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। মৃত্যুর সঠিক কারণ এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শ্বশুর সন্তোষ বোস অরফে এসকে বোস ও শাশুড়ি অশোকা রানী বোস আটক করেছে পুলিশ।

গৃহবধূ আঁখি বসু ব্রক্ষরাজপুর গ্রামের অরূপ বোসের স্ত্রী ও যশোরের কেশবপুর উপজেলার গোবিন্দ বসুর মেয়ে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজাউল ইসলাম জানান, অরূপ বোসের দ্বিতীয় স্ত্রী আঁখি বসু। স্ত্রীকে নির্যাতনের কারণে প্রথম স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়। পরে আবার দ্বিতীয় বিয়ে করে। স্ত্রীকে নির্যাতন করতো বিভিন্ন সময়। শ্বশুর শাশুড়ি সকলেই বাড়িতে ছিলেন এরমধ্যে একটা মানুষ আত্মহত্যা করতে পারে না।

সাতক্ষীরা সদর থানার সাব ইন্সপেক্টর হাসানুজ্জামান বলেন, দুই বছর আগে বিয়ে হয়েছে তাদের। পারিবারিক কলহের জের ধরে আত্মহত্যা করেছে আঁখি বসু এমনটা শুনছি। সকালে তার স্বামী অরূপ বোস বাড়িতে ছিলেন না। তবে শ্বশুর-শাশুড়ি বাড়িতে ছিলেন। এটা হত্যা না আত্মহত্যা সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এখনো সঠিক কারণ জানা যায়নি। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শ্বশুর ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে।

এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান।