সরকারি খাল দখলমুক্ত করতে গিয়ে হামলার স্বীকার ইউএনওসহ সঙ্গীরা

সাতক্ষীরার তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ইকবাল হোসেনের উপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

বুধবার রাতে ইউএনও’র গাড়িচালক বাদী হয়ে থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

গত সোমবার দুপুরে তালা উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের মাদরা এলাকায় সরকারি খালের নেটপাটা অপসারণকালে হামলার স্বীকার হন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

নেটপাটা অপসারনকালে খালটি নিজেদের বলে দাবি করেন স্থানীয়রা।

পরবর্তীতে গ্রামবাসী একত্রে মিলে ইউএনও’র সরকারিকাজে বাঁধা দানসহ সরকারি কাজে নিয়োজিত থাকা ইউএনও’র সঙ্গীদের উপর হামলা করেন।

ঘটনার দিন তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. ইকবাল হোসেন জানিয়েছিলেন, অভিযোগ ছিল খালটি দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রাখা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল ইতোমধ্যে জেলার সকল সরকারি খালের ইজারা বাতিল
ঘোষনা করে দখলমুক্ত করার কার্যক্রম ঘোষনা করেছেন।

সোমবার দুপুরের পর মাগুরা ইউনিয়নের মাদরা এলাকায় সরকারি খালের নেটপাটা অপসারণের জন্য অভিযান পরিচালনা করা হয়।

প্রথম দুইটা খালের নেটপাটা ভালোভাবেই অপসারণ করা হয়।

পরবর্তীতে তৃতীয় নম্বর খালটি থেকে নেটপাটা অপসারণ করতে গেলে স্থানীয় মহিলাসহ পুরুষরা বাঁধা দেয়। তারা খালটি তাদের ইজারা নেওয়া ও অধিকার রয়েছে বলে দাবি করে। আমি মনে করি ওই খালে তাদের কোন
অধিকার নেই। পরবর্তীতে অপসারণ কাজে নিয়োজিত লোকজনদের সরকারি কাজে বাঁধা প্রদান করে।

স্থানীয়রা জানান, এই খালটি স্থানীয় সমীর কুমার দাস এক বছর ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করে আসছেন।

পাশে আরও দুই একটি খাল জনগনের পক্ষে ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করছেন সমীর কুমার দাস।

ইউএনও নেটপাটা অপসারন করে খালটি অবমুক্ত করতে গেলে তারা সম্মিলিতভাবে বাঁধা দেয়।

তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সরকারিকাজে নিয়োজিতদের উপর হামলার ঘটনায় ১১ জনের নাম
উল্লেখপূর্বক ও অজ্ঞাত নামা ৭০-৮০ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের গাড়ি চালক রোকনুজ্জামান বাদী মামলাটি দায়ের করেন।

তিনি বলেন, মামলায় বৃহস্পতিবার বেলা ২টা পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।