সাতকানিয়ায় আকস্মিক বন্যা।

কয়েক দিনের ভারী বৃষ্টির ফলে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে বন্যা দেখা দিয়েছে। হঠাৎ করে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় প্রায় কয়েক হাজার মানুষ।

টানা বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট বন্যায় কেঁওচিয়া ইউনিয়নের কয়েকটি সড়ক ভেঙ্গে যায়। যার ফলে মানুষের যাতায়াত কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। পানি বেড়ে যাওয়ায় বন্ধ রাখা হয়েছে কয়েকটি প্রাইমারী স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ।

এছাড়া অস্বাভাবিক বৃষ্টির ফলে দক্ষিণ চট্টগ্রামের প্রাণ কেন্দ্র কেরানীহাটে পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার কারণে বৃষ্টির পানি জমে গিয়ে মানুষের চলাচল কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেরানীহাট জামে উল উলুম ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় পানি প্রবেশ করায় পাঠদান বন্ধ রয়েছে।

সাধারণ মানুষ এবং ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন, অল্প বৃষ্টিতেই কেরানীহাট বান্দরবান সড়কের বায়তুশ শরফের সামনে পানি জমে যায়। যার ফলে সাধারণ মানুষদের দুর্ভোগ পোহাতে হয় প্রায়ই।

এই ব্যাপারে স্হানীয় প্রতিনিধিরা কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ। এছাড়া ভারী বৃষ্টির ফলে পানি বেড়ে যাওয়ায় বন্ধ রয়ছে দোহাজারী- কক্সবাজার রেল সড়কের কাজ। প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তা পানিতে ডুবে গেছে।

বাজালিয়া কর্ণেল অলি আহমদ কলেজের সামনে বন্যার পানি বেড়ে গিয়ে রাস্তার উপর চলাচল করায় বান্দরবানের সাথে চট্টগ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

কামরুল হাসান/চট্টগ্রাম