ক্রীড়া বিষয়ক বইয়ের পরিচিতি জানাতে প্রেসবক্সের নিয়মিত আয়োজনে থাকছে ‘খেলার বই’। ছবি: রকমারি.কম

খেলা থেকে খেলোয়াড়, খেলোয়াড় থেকে ক্লাব- ক্রীড়া বিষয়ক বই, খুঁটিনাটি সবই গুরুত্বপূর্ণ আমাদের কাছে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে লেখা ক্রীড়া বিষয়ক বইয়ের পরিচিতি জানাতে প্রেসবক্সের নিয়মিত আয়োজনে থাকছে ‘খেলার বই’।

সাকিব আল হাসান: আপন চোখে ভিন্ন চোখে
লেখক : দেবব্রত মুখোপাধ্যায়
প্রকাশক : ঐতিহ্য
সংস্করণ : প্রথম, ২০১৫

বইয়ের কিছু অংশ
‘২০০৬ সালের কথা। পনেরো বছর বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দারুণ প্রস্তুতি নিচ্ছি আমরা। মূলত, দেশে ও বিদেশে একটার পর একটা সিরিজ খেলছি। সেই সময়ে জিম্বাবুয়ে সফরে আমাদের সঙ্গে একটা নতুন ছেলেকে দিয়ে দেওয়া হলো- ব্যাটিং অলরাউন্ডার; বাঁহাতি স্পিন করে। ছেলেটা দেখতে খুব হ্যাংলা-পাতলা, আগে কখনো সেভাবে পরিচয় হয়নি, খেলাও দেখিনি। ফলে, প্রথমে দলে পেয়ে খুব একটা মুগ্ধ হয়ে গেছি বলা যাবে না। বরং দলে তখন রফিক ছিল, রাজ্জাক ছিল, ওদের ভিড়ে আরেকটা বাঁহাতি স্পিনারকে খেয়াল করেও দেখিনি। তারপরও যেহেতু বলা হচ্ছিল ছেলেটার ভবিষ্যৎ ভালো তাই ওকে একটা ম্যাচ খেলানোর ইচ্ছে ছিল। কিন্তু জিম্বাবুয়ের সঙ্গে একটা প্রস্তুতি ম্যাচে ওর বোলিং দেখে সে ইচ্ছেটাও নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। জিম্বাবুয়ে স্পিন ভালো খেলে না, বাঁহাতি স্পিন বুঝতেই পারে না। সেখানে প্রায় সবাই ভালো খেলছে। এরপর আর ছেলেটাকে নামানোর ইচ্ছে থাকে? তারপরও সিরিজের শেষ ম্যাচে মুশফিককে খেলানো হলো না, তাই ছেলেটাকেও একটা চান্স দিলাম; সিরিজ তো হেরেই গেছি। আমার জীবনে বড় বিস্ময় ওই ছেলেটা উপহার দিয়েছিল সেদিন। অনুশীলন ম্যাচে কাকে দেখছিলাম আর আজ কাকে দেখছি। ব্যাট হাতে দলের ম্যাচ বের করে আনা ৩০ রানের একটা ইনিংস খেললো বটে। কিন্তু আমি মুগ্ধ হলাম বোলিং দেখে- অবিশ্বাস্য।’

প্রাপ্তির স্থান : রকমারি.কম

আজকের পত্রিকা/সিফাত