সহিফা-সমরু সড়কের উদ্বোধন করলেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত

সহিফা-সমরু নামে নতুন একটি রাস্তার উদ্বোধন করলেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত। বৃহস্পতিবার সকালে সুনামগঞ্জ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডস্থিত জেলা পুলিশ সুপারের বাংলোর পাশে দিয়ে পূর্ব দিকে যাওয়া নতুন রাস্তাটির এই নামকরন করা হয়।

সুনামগঞ্জ পৌরসভার উকিলপাড়া-ষোলঘরস্থ সুরমা-৪নং জামান হাউজের স্বত্তাধিকারী প্রয়াত সমরু মিয়া চৌধুরী ও তার সহধর্মিনী সহিফা খানম চৌধুরীর নামানুসারে ঐ রাস্তাটির নামকরনের জন্য সুনামগঞ্জ পৌরসভা সর্বসম্মত সিদ্বান্ত নিয়ে ঐ রাস্তাটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়।

এই দম্পতির সুযোগ্য পুত্র সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সদস্য,প্রথিতযশা সাংবাদিক এডভোকেট সামসুজ্জামান চৌধুরী সুফি,সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী সাফি,নিউইয়র্ক আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি নুরুজ্জামান চৌধুরী শাহী,যুক্তরাজ্য প্রবাসী ওহিদুজ্জামান চৌধুরী ওহী,সুনামগঞ্জ প্রবাসী সমিতি সুপ্রবাস এর সভাপতি ইমানুজ্জামান চৌধুরী মহী ও দৈনিক সুনামগঞ্জ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক আহমদুজ্জামান চৌধুরী হাসান তাদের প্রয়াত পিতামাতার নামে বিভিন্ন সময় সমাজসেবা ও আর্ত মানবতার সেবায় প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করায় কৃতজ্ঞতা স্বরুপ পৌরসভা এই উদ্যোগ নেয়।

এছাড়া রাস্তার অধিকাংশ জায়গা ঐ পরিবারের ব্যক্তি মালিকানাধীন হওয়ায় পরিবারের সদস্যরা জনস্বার্থে পৌর এলাকায় রাস্তার জন্য নিজেদের জায়গাটুকু মাটি ভরাটের পর পৌর কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আাকর্ষনসহ হস্তান্তর করলে কৃতজ্ঞতা স্বরুপ তাদের প্রয়াত পিতামাতার নামেই রাস্তাটির নামকরন করতে সদিচ্ছা প্রকাশ করেন মেয়র।

তাছাড়া সহিফা-সমরু দম্পতিদ্বয়ের সাথে এই পৌরসভার বর্তমান মেয়র ছাড়াও সাবেক চেয়ারম্যান মনোয়ার বখত নেক ও সাবেক মেয়র আযুব বখত জগলুলের আত্মীয়তার সম্পর্ক রয়েছে। আরপিননগর নিবাসী তালুকদার পরিবারের কন্যা সহিফা খানম চৌধুরী ছিলেন আব্দুস সামাদ চৌধুরীর কনিষ্ট কন্যা। সহিফা খানম চৌধুরীর ২ ভাই যথাক্রমে আব্দুল আহাদ চৌধুরী তারা মিয়া ও সাংবাদিক আব্দুল হাই চৌধুরী গোলাপ মিয়া ওরফে হাছনপছন্দ সুনামগঞ্জ মহকুমা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাকালীন সদস্য ও সম্পাদক ছিলেন।

ভাষা আন্দোলনে রাজপথের আন্দোলনের অগ্রনায়ক হিসেবে কারাভোগ করেন আব্দুল হাই। ৭১ এর মহাণ মুক্তিযুদ্ধে বালাট সাবসেক্টরে প্রচার সমন্বয়কারী ও সংগঠকের দায়িত্ব পালন করেন এই সহোদর। সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার ভাটিপাড়া নিবাসী সফাত উল্লাহ তালুকদারের পুত্র সমরু মিয়া চৌধুরী জীবদ্ধশায় সুনামগঞ্জ জজকোর্টের একজন পেশকার ছিলেন।

চাকুরীর সুবাদে তিনি সুনামগঞ্জে বসবাস করে এ শহরেই জায়গা ক্রয়ের পর বসতি স্থাপন করেন। এবং সহিফা খানম চৌধুরীর সাথে বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ হন।

এ সুবাদে সুনামগঞ্জ পৌরসভার ১জন সাবেক চেয়ারম্যান ও ২ জন মেয়র সম্পর্কে সহিফা খানম চৌধুরীর ভ্রাতা ও সমরু চৌধুরীর শ্যালক হন। মেয়র নাদের বখত বলেন,ভবিষ্যতে পৌরসভার অন্যান্য সম্মানিত নাগরিকরা যাতে রাস্তা বা গুরুত্বপূর্ন যেকোন স্থাপনার জন্য নিজেদের জায়গা পৌরবাসীর কল্যাণে ও প্রয়োজনে দান করেন এই লক্ষ্যে সকলকে উৎসাহী করতে আমরা এই উদ্যোগ গ্রহন ও বাস্তবায়ন করেছি।

আমার বোন ও ভগ্নিপতির নামে এই সড়কটি আমার হাত দ্বারা উদ্বোধন করতে পারায় আমি নিজেকে গৌরবান্বিত মনে করছি। এজন্য মহান আল্লাহতায়ালার দরবারে লাখো কোটি শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন মেয়র নাদের বখত। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহিফা-সমরু দম্পতির পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী অহিদুজ্জামান চৌধুরী অহী,দৈনিক সুনামগঞ্জ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক আহমদুজ্জামান চৌধুরী হাসান,বীর মুক্তিযোদ্ধা অরুন কান্তি দে,যুক্তরাজ্য প্রবাসী মোঃ ইকবাল হোসেন রাজা,সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মইনুল হোসেন চৌধুরী, ২নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর সৈয়দ ইয়াসিনুর রশীদ,সৈয়দ মামুনুর রশীদ,স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা রাসেল চৌধুরী, সাংবাদিক আল-হেলাল,সাংবাদিক আনিসুজ্জামান ইমন,আহমদুজ্জামান চৌধুরী হাসান এর জামাতা যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুর রহিম খান,সাকিল আহমদ,মোশাররফ হোসেনসহ পরিবারের সদস্যবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

দোয়া পরিচালনা করেন মুসলিম ছাত্রাবাস জামে মসজিদের ইমাম।

-আল-হেলাল, সুনামগঞ্জ