খুন। প্রতীকী ছবি

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর শহীদ ফারুক রোডে মো. তাহের (২৮) নামে এক যুবক তারই সহকর্মী সোহেল রানার হাতে খুন হয়েছেন বলে জানা গেছে।

যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ জানায়, খাবারের দোকানের কর্মচারীদের দ্বন্দ্বে ১৪ জুলাই
শনিবার দিনগত রাত ১১ টার দিকে ঘটনাটি ঘটে।

তাহেরকে মুমূর্ষ অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রাত ২টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত তাহের ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আশরাফ আলীর ছেলে। তিনি শহীদ ফারুক রোডের আহম্মেদ বিরিয়ানী বাবুর্চিখানায় কাজ করতেন।

আহম্মেদ বিরিয়ানীর দোকানের মালিক রাজু আহম্মেদ জানান, যাত্রাবাড়ীর চৌরাস্তায় তাদের বিরিয়ানীর দোকান রয়েছে। শহীদ ফারুক রোডে বাবুর্চিখানা। সেখানেই কর্মচারী তাহের ও সোহেল রানা ওরফে মেহেদী থাকতো। রাতে মেহেদী তাহেরকে পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ঘাড়ে আঘাত করে পালিয়ে যায় বলে অন্যান্য সহকর্মীরা জানিয়েছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে যাত্রাবাড়ী থানার অফিসার্স ইনচার্জ মাজহারুল ইসলাম কাজল বলেন, কর্মচারী সোহেল রানা ওরফে মেহেদী (২০) তাহেরকে খুন করেছে বলে প্রাথমিক তথ্য পাওয়া গেছে। তবে হত্যার কারণ এখনো জানা যায়নি। সোহেলকে খোঁজা হচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ। মৃতদেহ ময়নাতদন্ত করার পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই ঘটনায় তাহেরের পরিবার ১৪ জুলাই রবিবার বিকেলে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

আজকের পত্রিকা/কেএফ