ডোপ টেষ্ট

সরকারি চাকরিরত অথবা কেউ সরকারি চাকরিতে যোগদানের আগে ডোপ টেস্টে মাদক গ্রহণের প্রমাণ মিললে তাকে বহিষ্কার বা চাকরিতে না নেওয়ার সুপারিশ করেছে জাতীয় সংসদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটি একই সাথে সব শ্রেণির মানুষের ডোপ টেস্ট করার ব্যাপারে মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দিয়েছে।

২২ মে বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। কমিটি মাদকের ব্যাপারে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান আরো জোরদার করার তাগিদ দিয়েছে।

কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, মো. হাবিবর রহমান, মো. ফরিদুল হক খান ও পীর ফজলুর রহমান এবং নুর মোহাম্মদ অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটি সভাপতি মো. শামসুল হক টুকু বলেন, ডোপ টেস্টের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা হলো ডোপ টেস্টে কেউ ধরা পড়লেই আউট। যেখানে প্রয়োজন হবে সেখানেই ডোপ টেস্ট করতে হবে। ডোপ টেস্টে কেউ আউট হলে, সে আউট। চাকরিতে নিয়োগ বা চাকরিরত অবস্থায় ডোপ টেস্টে আউট হলে সবাই সর্তক হবে।

আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী যে কোনো সম্ভাব্য অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার তথ্যকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যথাযথভাবে তদারকিরও সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। আলোচনার একপর্যায়ে কমিটির সদস্য পীর ফজলুর রহমান বৈঠকে হেনরী স্বপনের গ্রেফতারের বিষয়টি আলোচনায় আনেন।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস/জেবি