কনে। প্রতীকী ছবি

বাড়ির একমাত্র মেয়ের বিয়ে বলে কথা। সকাল থেকেই বাড়িতে সাজ সাজ রব। অন্যদিকে তৈরি বরপক্ষও। কিন্তু বিয়ের আসরে বর দেরিতে আসায় অন্য ছেলের সঙ্গে বিয়ে হয়ে গেল মেয়ের। সম্প্রতি ভারতের উত্তরপ্রদেশে এ ঘটনা ঘটে।

ইন্ডিয়া টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বরপক্ষ বাজি পুড়িয়ে, মন খুলে নাচ করে যখন মেয়ের বাড়ি পৌঁছায়, তখন সময় পেরিয়ে গেছে অনেকটাই। আর এতেই পাত্রী বেঁকে বসে। যে পাত্রের সময়জ্ঞান নেই, তাকে বিয়ে করার কোনো কারণ নেই বলে জানান পাত্রী।

এরপর মেয়ের বাড়ির লোকজন পাত্রপক্ষকে একটি ঘরে আটকে রেখে মারধর করে। আর সে সময় পাশের বাড়ির আরেক ছেলের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দেওয়া হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনার প্রায় দেড় মাস আগে এক গণবিবাহের অনুষ্ঠানেই চার হাত এক হয় তাদের। কিন্তু বরপক্ষ ক্রমাগত আনুষ্ঠানিক বিবাহের দাবি জানায়। কারণ, পুরোপুরি নিয়ম মেনে বিয়ে না হলে তারা নতুন বউকে বাড়ি নিয়ে যেতে পারবে না। সেইসঙ্গে যৌতুকের জন্যও একাধিক দাবি ছিল।

বিয়ের অনুষ্ঠানে মেয়ের বাড়িতে দুপুর ২টায় বরপক্ষের পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু তারা পৌঁছায় রাত ১০টায়। জিজ্ঞাসাবাদে পাত্রপক্ষ জানিয়েছে, পাওনা নিয়ে মন কষাকষির জেরেই তারা এত দেরি করে এসেছে।

মাঝরাতে পুলিশ এসে পাত্রপক্ষকে উদ্ধার করে। তারা অভিযোগ জানিয়েছে, মেয়ের বাড়ির লোকজন তাদের সব স্বর্ণালংকার কেড়ে নিয়েছে। তবে দুই পক্ষর তরফ থেকে এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।